ইয়েমেনের জনপ্রিয় হুথি আনসারুল্লাহ যোদ্ধাদের নিয়ন্ত্রণে থাকা বন্দরনগরী হুদায়দা দখল করতে সংযুক্ত আরব আমিরাত আমেরিকার কাছে যে সাহায্য চেয়েছিল ওয়াশিংটন তা বিবেচনা করছে বলে জানা গেছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও আরব আমিরাতের আবেদন খতিয়ে দেখতে আমেরিকার সংশ্লিষ্ট বিভাগকে নির্দেশ দিয়েছেন।

সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন কথিত আরব জোটের প্রভাবশালী সদস্য হচ্ছে আরব আমিরাত এবং এ জোট দীর্ঘদিন ধরে হুদায়দা বন্দর দখলের চেষ্টা করছে।

দারিদ্র পীড়িত ইয়েমেনে সৌদি জোটের হামলা চলতে থাকলে ভয়াবহ বিপর্যয় নেমে আসতে পারে বলে জাতিসংঘের হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও সাম্প্রতিক সময়ে হুদায়দা’র ওপর পাশবিক হামলা জোরদার করেছে সৌদি আরব।

ইয়েমেনের প্রধান প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত হুদায়দা বন্দর দিয়ে দেশটির শতকরা ৮০ ভাগ বাণিজ্যিক ও মানবিক ত্রাণ সরবরাহ সম্পন্ন হয়। সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট দাবি করছে, আনসারুল্লাহ যোদ্ধারা এ বন্দর দিয়ে অস্ত্রসস্ত্র আমদানি করে।

মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত ওয়াশিংটনকে এই মর্মে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে, আমেরিকার সাহায্য না আসা পর্যন্ত তারা লোহিত সাগর তীরের এ বন্দরটির নিয়ন্ত্রণ গ্রহণের চেষ্টা করবে না।

মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, দেশটির কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে নিশ্চিত নন যে, ব্যাপক মানবিক বিপর্যয় ছাড়া হুদায়দা বন্দর দখল করা যাবে কিনা। এ কারণে, তারা সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের আবেদনে সাড়া দিয়ে সময় নিচ্ছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য