আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে আলেমদের এক শান্তি সম্মেলনের প্রবেশ পথের কাছে আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত আট জন নিহত হয়েছেন।

সোমবার মোটরসাইকেল আরোহী এক আত্মঘাতী হামলাটি চালায় বলে জানিয়েছেন নিরাপত্তা কর্মকর্তারা ও প্রত্যক্ষদর্শীরা, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

পশ্চিম কাবুলের আবাসিক ভবনগুলোর কাছে বিশাল একটি তাঁবুর প্রবেশ পথে বোমাটি বিস্ফোরিত হয় বলে জানিয়েছেন এক প্রত্যক্ষদর্শী। অধিকাংশ আলেম সম্মেলনস্থল ছেড়ে চলে যাওয়ার পর হামলাটি চালানো হয়।

বোমা হামলার পর নিকটবর্তী এলাকায় বসবাস করা নারীরা কাঁদতে থাকেন, তারা পরিবারের সবাইকে নিয়ে ওই সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন।

এক প্রত্যক্ষদর্শী রয়টার্সকে বলেন, “লোকজন আহত হয়েছেন, তারা চিৎকার করছেন।”

রোববার থেকে কাবুলের লয়া জিরগা (গ্রান্ড কাউন্সিল) তাঁবুতে আলেমদের ওই শান্তি সম্মেলনটি শুরু হয়েছিল; যেখানে সারা দেশে থেকে আসা দুই হাজারেরও বেশি আলেম যোগ দিয়েছিলেন। তারা বছরের পর বছর ধরে চলা লড়াইয়ের নিন্দা করেছেন।

সম্মেলনে যোগ দেওয়া আলেমরা তালেবানদের প্রতি শান্তি প্রতিষ্ঠার দাবি জানিয়ে একটি ফতোয়া জারিরও পরিকল্পনা করেছেন। বিদেশি সৈন্যদের দেশ ত্যাগের সুযোগ দিতে শান্তি প্রতিষ্ঠা জরুরি বলে মনে করছেন তারা।

হামলার পর তাৎক্ষণিকভাবে কোনো গোষ্ঠী এর দায় স্বীকার করেনি। হামলার সঙ্গে কোনো ধরনের সংশ্লিষ্টতার কথা অস্বীকার করেছে তালেবান।

আগামী ২০ অক্টোবর আফগানিস্তানে পার্লামেন্ট নির্বাচন ও জেলা কাউন্সিলের নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। তার আগে একের পর এক হামলায় বিদ্রোহীরা দেশটির নিরাপত্তা পরিস্থিতি নাজুক করে তুলছে বলে ধারণা পর্যবেক্ষকদের।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে কাবুলে ধারাবাহিক বোমা হামলায় বহু লোক নিহত হয়েছেন। এখন রমজান মাস চললেও সহিংসতা কমার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য