ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির শ্রমিক ধর্মঘটের ২২ দিনপর পেট্র-বাংলা চেয়ারম্যান আন্দোলনরত শ্রমিকদের দাবী পুরন করার আশ্বাস দেয়ায়, আন্দোলন প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দিয়েচে আন্দোলনরত শ্রমিকরা।

আজ রবিবার সকাল সকাল ৬ টা থেকে তারা কাজে যোগ দিয়েছে। এর পুর্বে গতকাল শনিবার দিবাগত রাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ফুলবাড়ী (সার্কেল) রফিকুর ইসলামের উদ্যোগে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির সভাকক্ষে একটি সমজোতা বৈঠক বসে। সমজোতা বৈঠকে আন্দোলনরত শ্রমিক নেতৃবৃন্দ ও খনি কতৃপক্ষের সাথে টেলিফোন যোগে কথা বলেন পেট্র-বাংলা চেয়ারম্যান আবুণ মনসুর ফয়জুল্যা।

এসময় তিনি আলোচনার মাধ্যমে আন্দোলনরত শ্রমিকদের দাবী পুরন করার আশ্বাস দিয়ে শ্রমিকদের কাজে যোগ দেয়ার আহবান জানান। পেট্র-বাংলা চেয়ারম্যানের আশ্বাসে সাড়া দিয়ে, ওই দিন রাত সাড়ে ১১ টায় আন্দোলনরত শ্রমিকরা আন্দোলন কর্মসুচি প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দেয়ার ঘোষনা দেন।

সমজোতা বৈঠকে অংশগ্রহন করেন আন্দোলনরত শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রবিউল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক আবু সুফিয়ান ও সাবেক সভাপতি ওয়াজেদ আলীর নেতৃতে ১০ সদস্যর একটি শ্রমিকদল ও ক্ষতিগ্রস্থ ২০ গ্রামের সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক মশিউর রহমান বুলবুল মিজানুর রহমান ১০ সদস্যর একটি দল। খনি কতৃফক্ষের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন, জিএম আবুল কাশেম প্রধানিয়াসহ ৫ জন পদস্থ কর্মকর্তা।

খনি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রবিউল ইসলাম বলেন পেট্র-বাংলা চেয়ারম্যান মহদয় আলোচনার মাধ্যমে শ্রমিকদের দাবী পুরন করার আশ্বাস দিয়েছে, তাই শ্রমিকরা আন্দোলন প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন গত শনিবার বিকালে পার্বতীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হাফিজুল ইসলাম প্রামানিকের বাড়ীতে আন্দোলন ও দাবী নিয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এ্যাডভোকেট মোস্তাফিজার রহমানের সাথে একটি বৈঠক হয়।

বৈঠকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি আন্দোলন প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দেয়ার পরামর্শ দেয় এবং পেট্র-বাংলা চেয়ারম্যানের সাথে টেলিফোনে কথা বলে, এর কায়েক ঘন্টাপর সমজোতা বৈঠকে পেট্র-বাংলা চেয়ারম্যান শ্রমিকদের দাবী পুরনের আশ্বাস দেয়।

উল্লেখ্য গত ১৩মে থেকে বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক ইউনিয়ন ১৩ দফা দাবীতে শ্রমিক ধর্মঘট কর্মসুচি পালন করে আসছে। শ্রমিক ধর্মঘট চলাকালিন গত ১৫ মে সকালে কয়েকজন কর্মকর্তা খনির ভিতরে প্রবেশ করাকে কেন্দ্র করে কর্মকর্তাদের সাথে শ্রমিকদের সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় উভায় পক্ষের অন্তত ১৩ জন আহত হয়।

এই ঘটনায় খনি কর্তৃপক্ষ পৃথক দুটি ও আন্দোলনরত শ্রমিকরা একটিসহ মোটি তিনটি মামলা দায়ের করা হয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে জ্বালানী মন্ত্রনালয় গত ২৩মে পেট্রোবাংলার পরিচালক (প্রশাসন) মোস্তফা কামালকে আহবায়ক করে তিন সদস্যর একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় কমিটির অন্য সদস্য জ্বালানী বিভাগের উপ-সচিব মুহা. মনিরুজ্জামান ও হাইড্রোকার্বন ইউনিটের পরিচালক এএসএম মঞ্জুরুল কাদের। তদন্ত কমিটি গত ২৬ মে খনিতে এসে আন্দোলনরত শ্রমিক ও ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসীদের সাতে আলোচনায় বসে। ও ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য