অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় হামাস ও ইসলামিক জিহাদের ৩৫টি স্থাপনায় বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। কয়েক বছরের মধ্যে গাজায় চালানো সবচেয়ে বৃহৎ পরিসরের ইসরাইলি হামলা এটি। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা ও বিবিসি।

খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার ইসরাইলের একটি খালি কিন্ডারগার্টেনকে লক্ষ্য করে ৩০টি মর্টার হামলা চালায় ফিলিস্তিনের সশস্ত্র সংগঠন ইসলামিক জিহাদ ও হামাস। গত সপ্তাহে এক ইসরাইলি হামলায় তাদের কয়েকজন সদস্য মারা যাওয়ার পর সংগঠনটি প্রতিশোধ নেবে বলে জানিয়েছিল ইসলামিক জিহাদ।

ইসরাইলি সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা গাজায় হামাস ও ইসলামিক জিহাদের ৩৫টি স্থাপনায় বিমান হামলা চালিয়েছে।

এদিকে এক যৌথ বিবৃতিতে হামাস ও ইসলামিক জিহাদ জানিয়েছে, ইসরাইলে সামরিক বাহিনীর স্থাপনা লক্ষ্য করে চালানো রকেট হামলাগুলোর মানে হচ্ছে এই ঘোষণা দেয়া যে, ইসরাইলের অপরাধ আর কোনভাবেই সহ্য করা হবে না।

হামাসের এক কর্মকর্তা ইসমাইল রাদওয়ান জানান, সাম্প্রতিক এই হামলার মধ্য দিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি করেছে ইসরাইল। তিনি বলেন, ইহুদি দখলকারীদের কাছ থেকে হামলার তীব্রতা বৃদ্ধি খুবই বিপজ্জনক। তারা এই উত্তেজনা বৃদ্ধি ও এর জন্য পরিস্থিতি যে মোড় নেবে তার জন্য দায়ী।

রাদওয়ান আরো বলেন, এই দখলকারীদের এটা জেনে রাখা উচিত, প্রতিরোধের মাধ্যমে তাদের অপরাধের পাল্টা জবাব দেয়া হবে।

গত মার্চ থেকে ইসরাইলে নিজের পিতৃপুরুষের জন্মভূমিতে ফিরে যাওয়ার অধিকার চেয়ে গাজার ইসরাইল সংলগ্ন সীমান্তে বিক্ষোভ করে হাজার হাজার ফিলিস্তিনি। এই বিক্ষোভে অবরুদ্ধ উপত্যকাটিতে ইসরাইলি বাহিনীর হামলায় ১১৮ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য