ভারতের রোহিঙ্গা শিবিরে আবারও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। রবিবার সন্ধ্যার এই আগুন প্রায় তিন ঘণ্টা চেষ্টা করে নিয়ন্ত্রণে আনে দমকলকর্মীরা। তবে কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ফার্স্ট পোস্ট এর এক প্রতিবেদন থেকে একথা জানা যায়।

ফায়ার সার্ভিসের এক কর্মকর্তা সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেন, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এই আগুনের সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে। তবে নিশ্চিত করে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না।

দ্য ফার্স্ট পোস্ট জানায়, ওই শিবিরে ২১৫ জন বসবাস করতেন। প্রায় ৫০টি বাড়ি আগুনে পুড়ে গেছে। এক বাসিন্দা বলেন, ‘আমাদের সবকিছু হারিয়ে গেছে।’

হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে এক রোহিঙ্গা নেতা বলেন, ‘মৌলিক কিছু বিষয় সরবরাহ না করলে এমনটা হতেই থাকবে। জাতিসংঘের কাছে বারবার আমাদের করুণ অবস্থার কথা বলেছি। কিন্তু কোনও কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।’

এক মাস আগেই দিল্লিতে একটি রোহিঙ্গা শিবির ধ্বংস করা হয়। বাস্তুহারা হয়ে পড়ে ৫৫ রোহিঙ্গা পরিবার।

স্থানীয়দের অভিযোগ এই আগুন লাগা দুর্ঘটনা ছিল না। বরং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ছিল। তবে জাকাত ফাউন্ডেশনের জাফর মাহমুদ এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য