ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যের কানপুরে হিন্দু এক নারীর সঙ্গে সম্পর্ক থাকায় মারধরের শিকার হয়েছেন ২৪ বছর বয়সী এক মুসলিম যুবক।

ওই নারীর সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে আপত্তি তুলে যুবককে মারধরের পর সম্পর্ক না রাখতে হুমকি দিয়েছেন একদল লোক, জানিয়েছে এনডিটিভি।

হামলাকারীরা ওই যুবককে লাঞ্ছিত করার ভিডিও ধারণও করেছে। তাতে তাদের যুবকটিকে চড়থাপ্পর মারতে দেখা গেছে।

হামলাকারীদের জেরার উত্তরে যুবকটি জানিয়েছিল, গত তিন বছর ধরে ওই নারীর সঙ্গে কথা বলে আসছে সে।

গত শনিবার ঘটনাটি ঘটলেও ইন্টারনেটে আসা ঘটনার ভিডিওটি শুক্রবার ভাইরাল হয় বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

গত শুক্রবার মুসলিম সম্প্রদায়ের ওই যুবক রেল স্টেশনে ওই নারীর সঙ্গে দেখা করতে যান। একই এলাকায় বসবাস করা ওই হামলাকারীরা যুবককে অনুসরণ করে।

দুই মিনিটের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, হামলাকারীরা যুবককে ওই নারীর সম্পর্কে এবং তাদের সম্পর্কের ধরন সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। যুবকেরও উত্তরে ওই ব্যক্তিরা উত্তেজিত হয়ে তাকে সজোরে থাপ্পর মারে এবং লাঞ্ছিত করতে থাকে।

এ সময় হামলাকারীদের মধ্যে একজন বলে, “সে যা করেছে তার জন্য তাকে মূল্য চুকাতে হবে।

ভিডিওতে ওই ব্যক্তিকে বলতে শোনা যায়, “তোর জীবন বরবাদ করে দিতে না পারলে আমাদের নাম পাল্টায়া নাম রাখবো।”

এ সময় অন্য একটি কণ্ঠস্বর পরামর্শ দেয়, তাদের একটি নির্জন জায়গায় যাওয়া উচিত।

হামলার শিকার ব্যক্তি এনডিটিভিকে জানিয়েছে, হামলাকারীরা নিজেদের ডানপন্থি সংগঠনের সদস্য বলে দাবি করেছে। ওই নারী ও তিনি ভাল বন্ধু, এমনটি দাবি করে ওই যুবক জানিয়েছেন, অনেক দিন পর ওই বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে রেল স্টেশনে গিয়েছিলেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, ভিডিওতে দেখা যাওয়া হামলাকারীদের গ্রেপ্তার করতে তারা একটি টিম গঠন করেছে।

ভারতের উত্তরখান্ড রাজ্যে এক শিখ পুলিশ কর্মকর্তা উত্তেজিত একদল লোকের রোষ থেকে এক মুসলিম ব্যক্তিকে রক্ষার পর উত্তর প্রদেশের এ ভিডিওটি সামনে এল।

গত মঙ্গলবার উত্তরখান্ডের প্রখ্যাত রামনগর মন্দিরের কাছে হিন্দু নারী বন্ধুর সঙ্গে এক মুসলিম ব্যক্তিকে দেখে তার ওপর চড়াও হয় উত্তেজিত একদল লোক। এ সময় পুলিশ কর্মকর্তা গগনদ্বীপ সিং এগিয়ে গিয়ে ওই ব্যক্তিকে রক্ষা করেন।

উত্তেজিত জনতার হামলা থেকে তিনি এক ব্যক্তিকে রক্ষার জন্য তাকে আড়াল করে ধরে আছেন গগনদ্বীপের এমন একটি ছবিও ভাইরাল হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য