রোমান্টিক অনেক গানের সুরকার-শিল্পী বাপ্পা মজুমদারকে এক দশকের দাম্পত্য জীবনে প্রেমিক হিসেবে পাননি বলে দাবি করেছেন তার সাবেক স্ত্রী মেহবুবা মাহনুর চাঁদনী।

তানিয়া হোসাইনের সঙ্গে বাপ্পার বাগদানের খবরে নৃত্যশিল্পী-অভিনেত্রী চাঁদনী বললেন তাদের দাম্পত্য জীবন নিয়ে অসুখের কথা।

তিনি বুধবার গ্লিটজকে বলেন, “বাপ্পার সঙ্গে আমার কখনও প্রেম ছিল না, সেটেলড বিয়ে ছিল ওটা। আমি বাপ্পাকে ভালোবাসি, কিন্তু স্বামী হিসেবে; প্রেমিক ছিল না সে আমার।”

২০০৮ সালের ২১ মার্চ পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়েছিল একই অঙ্গনের দুই তারকা বাপ্পা ও চাঁদনীর।

চাঁদনীর সঙ্গে টানাপড়েনের মুখে আরেক অভিনেত্রী তানিয়ার সঙ্গে বাপ্পার বিয়ের খবর সম্প্রতি প্রকাশ হয়েছে।

১৬ মে রাতে রাজধানীর পশ্চিম পান্থপথে তানিয়ার বাসায় তাদের বাগদান হয়। আংটির ছবি ফেইসবুকে প্রকাশ করেছেন তানিয়া।

বাগদানের বিষয়টি বাপ্পাও গ্লিটজকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন, “বিয়ের তারিখ এখনও নির্ধারণ করা হয়নি। দুই পরিবারের সঙ্গে কথা বলেই তারিখটা নির্ধারণের প্রস্তুতি চলছে।”

তানিয়া এর আগে ২০১০ সালের ৩০ মার্চ চলচ্চিত্র পরিচালক দেবাশীষ বিশ্বাসকে বিয়ে করেছিলেন। মাত্র এক বছর টিকেছিল তাদের দাম্পত্য জীবন।

তানিয়া-বাপ্পার নতুন জীবনের শুভকামনাও জানিয়েছেন চাঁদনী।

তিনি গ্লিটজকে বলেন, “কোথাও না কোথাও মানুষ সুখ পেতেই চায়। আর সুখ যদি না পায় তাহলে মানুষের জীবন মানুষ বরবাদ করে দেয়। যেমন করছে অন্যরা।”

গত কয়েক মাস ধরে বাপ্পা-চাঁদনীর মনোমালিন্য চলছিল বলে জানা গেছে তাদের ঘনিষ্ঠজনদের কাছে।

বাপ্পার বাসা থেকে কয়েকবার বাবার বাড়িতে গিয়ে উঠেছিলেন চাঁদনী। ক্রমেই দু’জনের মধ্যে বাড়তে থাকা দূরত্বে দেয়াল তুলে দিল বাগদানের খবরটি।

প্রায় এক মাস আগে বাবাকে হারিয়েছেন চাঁদনী। মেয়ের স্বামীর নতুন করে বিয়ের প্রস্তুতির খবর জানেন না চাঁদনীর মা।

চাঁদনী বলেন, “খবরটি জেনে আমার মা যদি এখন হার্ট অ্যাটাক করে মারা যায়, তার কী হবে?”

চাঁদনীর সঙ্গে বাপ্পার আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়েবিচ্ছেদ ঘটেছে কি না, তা এখনও জানা যায়নি। বিষয়টি নিয়ে কেউই কোনো তথ্য দেননি।

“আমি টুঁ শব্দ করিনি। সত্য একদিন খোলাসা হবেই। আমি অনেক সহ্য করে এসেছি,” বলেন চাঁদনী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য