প্রায় সাত বছর ইসলামিক স্টেট (আইএস) যোদ্ধাদের হটিয়ে রাজধানী দামেস্ক পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার দাবি করেছে সিরিয়ার সেনাবাহিনী। ২০১১ সালে শুরু গৃহযুদ্ধে এটাকে দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিজয় হিসেবে দেখা হচ্ছে। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি এখবর জানিয়েছে।

গত কয়েক মাস ধরে বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সামরিক চাপ ও সমঝোতার মাধ্যমে আসাদ রাজধানীতে পূর্ণ কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার জন্য চেষ্টা করছিলেন। ধীরে ধীরে দামেস্কর বেশিরভাগ এলাকা দখলমুক্ত করলেও কিছু এলাকায় আইএস যোদ্ধাদের নিয়ন্ত্রণ ছিল।

রাজধানীর দক্ষিণে গত মাসে সেনাবাহিনী ও ফিলিস্তিনি মিলিশিয়ারা অভিযান শুরু করে। এসব এলাকার মধ্যে ছিল ফিলিস্তিনিদের শরণার্থী শিবির ইয়ারমুক এবং কাছে জেলা কাদাম, তাদামুন ও হাজার আল-আসওয়াদ।

সোমবার সিরিয়ার সেনাবাহিনী ঘোষণা দেয় এলাকাটি থেকে আইএসকে হটিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং রাজধানীতে পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। সরকারি বিবৃতি বলা হয়, সিরিয়ার সেনাবাহিনী আজ ঘোষণা দিচ্ছে যে, দামেস্ক, এর উপকণ্ঠ ও আশেপাশে শহরগুলো সম্পূর্ণ নিরাপদ। সিরিয়ার ভূমি শুদ্ধ করার আগ পর্যন্ত যুদ্ধের ময়দানে আমাদের অগ্রগতি থামবে না।

সেনাবাহিনীর এই ঘোষণার পর অনেক সেনা গুলি ছোড়ে উদযাপন করে। যদিও এই ঘোষণার পরও আকাশে কালো ধোঁয়া উড়তে দেখা গেছে। কয়েকটি পরিত্যক্ত এলাকায় এখনও গোলাগুলি হচ্ছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানায়, কয়েক সপ্তাহে টানা যুদ্ধ রবিবার অস্ত্রবিরতির মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে। সংস্থাটির প্রধান রামি আবদেল রহমান জানান, ৩২টি বাসে ১৬০০ মানুষ এলাকা ত্যাগ করেছে। এদের মধ্যে আইএস ও তাদের স্বজনরা রয়েছে। রবি ও সোমবার মানুষদের এলাকা ছাড়তে দেওয়া হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য