বিরল (দিনাজপুর) সংবাদাতাঃ বিরলের প্রাণকেন্দ্র ৫নং বিরল ইউনিয়ন পরিষদের সম্মূখভাগের জমি দীর্ঘ ২ দশক যাবৎ আইনী লড়াই শেষে প্রকৃত মালিক আদালত কর্তৃক দখল বুঝে পাওয়ার বিষয়টি এখন টক অব দ্যা উপজেলায় পরিণত হয়েছে। লোকমুখে শোনা যাচ্ছে “আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল যারা, ন্যায় বিচার পায় তারা” বাক্যটি। এছাড়াও শোনা যাচ্ছে, “সত্যের জয়, সর্বদা হয়”।

জানা গেছে, ১৬২ নং জে এল ভূক্ত বিরল মৌজার সি এস ১৮১, এস এ ২৪৪ নং খতিয়ানের ১৮৯ নং দাগে ৪১ শতক মধ্যে পৌণে চৌদ্দ শতক জমির ওয়ারিশ ও দলিল গ্রহিতা অংশিদার হিসাবে বিরল মৌজার মরহুম আব্দুল আজিজের ওয়ারিশ আব্দুল বাকি, রিয়াজুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, বাতিরন নেছা, সুরাইয়া বেগম, তছলিমা বেওয়া, মোছলেমা বেওয়া, মর্জিনা বেগম ও দলিল গ্রহিতা নুরুজ্জামান বাদী হয়ে একই মৌজার মরহুম জমির উদ্দীন আহাম্মদের ওয়ারিশ আবুল কাশেম, মোজাফ্ফর হোসেন, মরহুম আব্দুল জব্বারের ওয়ারিশ আনিছুর রহমান, দলিল গ্রহিতা মাসুদ আহাম্মদ, মামুন আহাম্মদ, জাফরুল আলম, মোল্লা আতাউল হক, শামসুল আলম, আতাবুর রহমান ও তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান (আক্কারুল) কে বিবাদী করে জেলা দিনাজপুরের বিজ্ঞ বিরল সহকারী জজ আদালতে ৩৩/৮ নং বাটোয়ারা মোকদ্দমা আনয়ন করে।

বিজ্ঞ আদালত দীর্ঘ শুনানী অন্তে ১২ মার্চ/২০০৯ তারিখে একতরফা প্রাথমিক ডিক্রি প্রদান করে এবং বাদী পক্ষ আদালতের মাধ্যমে ছাহামকৃত অংশের দখর নিতে পারবে মর্মে আদেশ প্রদান করে। গত ২৪ মার্চ/২০১৩ তারিখে কমিশন রিপোর্টের কপি গ্রহণ করে বিরল সহকারী জজ আদালত গত ১২ মার্চ/২০০৯ তারিখের প্রাথমিক ডিক্রিকে চুড়ান্ত ডিক্রি হিসাবে পূণরায় আদেশ দেন। গত ৯ মে/২০১৮ তারিখের জেলা জজ আদালতের নেজারত বিভাগের ভারপ্রাপ্ত জজ এর ১৮৪ (এন) ১/১৮ নং স্মারকে দখল প্রদানের জন্য জেলা পুলিশ সুপারকে অনুরোধ করে ১৬ মে/২০১৮ তারিখে পুলিশের উপস্থিতিতে আদালত কর্তৃপক্ষ মোঃ নুরুজ্জামনকে ৫নং বিরল ইউনিয়ন পরিষদের (প্রাক্তণ মুন্সি হোটেল) ভোগদখলকৃত সম্মূখভাগের ফাঁকা অংশ হতে ২ শতক জমি দখল বুঝিয়ে দিয়ে ঢোল সহরত সহকারে দখলদার ঘোষণা করে।

দীর্ঘ ২ দশক পর মোঃ নুরুজ্জামান প্রাক্তণ মুন্সি হোটেল এর স্থলে আদালতের মাধ্যমে নিজের জমি দখল বুঝে পাওয়ায় এলাকায় আইনের শাষনের একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণের নজির সৃষ্টি হয়। দীর্ঘ দিন পর দখল বুঝে পাওয়ার ফলে বিষয়টি টক অব দ্যা উপজেলায় পরিণত হয়ে লোকমুখে শোনা যাচ্ছে “আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল যারা, ন্যায় বিচার পায় তারা”।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য