ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির শ্রমিক ধর্মঘটের ১০ দিনেও অচলাবস্থা কাটেনি। গত রবিবার খনিকর্তৃপক্ষের ১৪ জন কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৬০ জনসহ ৭৪ জনের নামে আদালতে মামলা করেছেন আন্দোলনকারী খনি শ্রমিকরা।

বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান বাদি হয়ে। গত রবিবার বিকালে দিনাজপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালত- ৫ এ এই মামলা দায়ের করেন।

অপরদিকে বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) হাবিব উদ্দিন জানিয়েছেন, বাংলাদেশ তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ করপোরেশন লিমিটেডের( প্রেট্রো বাংলা) চেয়ারম্যান আবদুস মনসুর মোঃ ফয়জুল্লাহ এবং বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল আমিন এক বৈঠকে বসে ও ওই বৈঠক থেকে দিনাজপুর -৫ আসনের সংসদ সদস্য ও প্রাথমীক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রী অ্যাড. মোস্তাফিজুর রহমান ফিজারের সঙ্গে যোগাযোগ করে আলোচনান্তে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, শ্রমিকরা কাজে যোগদান না করা পর্যন্ত কোন আলোচনা হবেনা। তারা কাজে যোগদান করলেই প্রেট্রো বাংলা থেকে প্রতিনিধি পাঠানো হবে আলোচনার জন্য অন্যথায় নয়।

বড় পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন আহম্মেদ জানান, গতকাল সোমবার থেকে চায়না শ্রমিক কয়লা উত্তোলন শুরু করেছে। আন্দোলনরত বাংলাদেশী শ্রমিকরা কাজে যোগদান না করা পর্যন্ত চায়না শ্রমিকরাই কয়লা উত্তোলন কার্যক্রম চালিয়ে যাবে।

উল্লেখ্য গত ১৩ মে থেকে বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক ইউনিয়ন ১৩ দফা ও ক্ষতিগ্রস্থ্য এলাকাবাসী ৬ দফা দাবীতে ধর্মঘট কর্মসুচি পালন করে আসছে। এরই মধ্যে ১৫ মে সকালে কয়েকজন কর্মকর্তা খনির ভিতরে প্রবেশ করাকে কেন্দ্র করে কর্মকর্তাদের সঙ্গে শ্রমিকদের সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় উভায় পক্ষের অন্তত ১০ জন খনি কর্মকর্তাসহ ১৬ জন আহত হয়। এই ঘটনায় খনি কর্তৃপক্ষ পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছে।

খনি কর্তৃপক্ষের মামলা দায়েরের কয়েক দিন পর গত রবিবার ২০ মে আন্দোলনকারী শ্রমিকরা সহ ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কাশেম, মহা ব্যবস্থাপনা পরিচালক(মাইনিং অপারেশন) এবিএম নুরুজ্জামান চৌধুরী, মহাব্যবস্থাপক (সারফেস অপারেশন) সাইফুল ইসলাম, মহা ব্যবস্থাপক(প্ল্যাানিং এন্ড এক্সপ্লোরেশন) ও প্রকল্প পরিচালক এটিএম কামরুজ্জামান ও মাসুদ হালদার, ইমরান ও ইমাম হাসানসহ ১৪ জনের নাম দিয়ে ৭৪ জনকে আসামী করে দিনাজপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালত- ৫ এ এই মামলা দায়ের করেন খনি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান ।

বিচারক ইসমাইল হোসেন মামলার শুনানী শেষে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ওসি পার্বতীপুর মডেল থানাকে আদেশ প্রদান করেন।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির চলমান সংকট নিয়ে থানায় দুইটি ও কোটে একটি মামলা দায়ের হল। অপরদিকে আহত সহকারী ব্যবস্থাপক( সারফেস) সাজিউল ইসলাম সাজুকেঅবস্থার অবনতি হওয়ায় গত রবিবার সন্ধ্যায় বিমান যোগে পিজি হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য