শুক্রবার কিউবার বিমানটির দুটি ব্ল্যাক বক্সের মধ্যে একটি ভালো অবস্থায় খুঁজে পাওয়ার কথা জানিয়েছে দেশটির কর্মকর্তারা। বিমানযাত্রার সর্বশেষ পরিস্থিত জানার জন্য ব্লাক বক্সকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা করা হয়। দেশটির পরিবহনমন্ত্রী আদেল ইজকুয়ের্দো দ্বিতীয় ব্ল্যাক বক্সটিও খুব দ্রুত খুঁজে পাওয়ার আশা প্রকাশ করেছেন।

হাভানা বিমানবন্দরের কাছে ওই বিধ্বস্তের ঘটনায় পাঁচ শিশুসহ মোট ১১০ যাত্রী নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে ১১ জন বিদেশি নাগরিক। বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় বেঁচে গেছেন ৩ নারী। তবে মারাত্মক অগ্নিদগ্ধ হওয়ায় তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এসব খবর জানিয়েছে।

গত দুই দশকের মধ্যে কিউবার সবচেয়ে বড় এই বিমান দুর্ঘটনায় শনিবার থেকে দুই দিনের শোক পালন করছে কিউবা। এর আগে কিউবার সবচেয়ে প্রাণঘাতি বিমান দুর্ঘটনা ঘটে ১৯৮৯ সালে। সোভিয়েত ইউনিয়নের তৈরি একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে সেবার হাভানার কাছে ১২৬ যাত্রী ও ভূমিতে থাকা আরও ২৪ জন নিহত হন। দেশটির কর্মকর্তারা বলছেন, তদন্তকারীরা শুক্রবার বিধ্বস্ত হওয়া ৪০ বছরের পুরনো বোয়িং ৭৩৭ বিমানটির ধ্বংসাবশেষ তল্লাশি করে দেখছেন।

হাভানায় উদ্ধার করা ব্লাক বক্সটিতে বিমানটির সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

দেশটির পরিবহনমন্ত্রী আদেল ইজকুয়ের্দো জানিয়েছেন, নিহত ১১০ জনের মধ্যে ৯৯ জন কিউবার নাগরিক, ৬ জন মেক্সিকোর বিমানকর্মী, আর্জেন্টিনার দুই পর্যটক, এক মেক্সিকোর নাগরিক ও পশ্চিম সাহারার দুই যাত্রী রয়েছেন। বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের স্বজনেরা মরদেহ শনাক্ত করতে হাভানায় পৌঁছেছে।

আর্জেন্টিনা সরকার জানিয়েছে কিউবায় বিমান দুর্ঘটনায় নিহত দোরা বিয়ারট্রিজ ও অস্কার হুগো নামের এই দম্পত্তি ষাটোর্ধ বয়সের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য