সাধারণত রমজানে নতুন ছবি মুক্তির প্রক্রিয়া বন্ধ থাকে। এবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না।

তবে এ মাসে ঈদের জন্য ছবি মুক্তির প্রস্তুতি থাকে ব্যাপক। আসন্ন ঈদ উপলক্ষে মুক্তির জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে কয়েকটি ছবি। অনেকে আওয়াজ দিলেও শেষ পর্যন্ত ক’টি ছবি মুক্তি পাবে সেটা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে। ঈদে মুক্তি প্রতিক্ষীত সম্ভাব্য ছবির হাল-হকিকত নিয়েই আজকের এ আয়োজন। লিখেছেন অনিন্দ্য মামুন

রমজানের পবিত্রতা বজায় রাখতে প্রতিবছরের মতো এবারও সাপ্তাহিক ছবি মুক্তির প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে গেছে বেশ কয়েকদিন আগেই। বিষয়টিকে ‘রমজানের পবিত্রতা রক্ষা’ বলা হলেও আদপে কিন্তু তা নয়। রোজার মাসে নতুন ছবি মুক্তি দিলে ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে হয়। এমনিতেই সিনেমা হলে দর্শক সমাগম কম। রমজানে সেটিও থাকে না।

তাই এ মাসে ছবি মুক্তি দিয়ে কোনোরকম ‘ঝুঁকি’ নিতে রাজি নন প্রযোজকরা। প্রায় প্রতিবছর রমজানের এক সপ্তাহ আগে থেকে ছবি মুক্তি দেয়া বন্ধ রাখা হয়। এবারও হয়েছে। এই এক মাস কোনো নতুন ছবি দেখা যাবে না প্রেক্ষাগৃহে।

পুরনো ছবি দিয়েই চালিয়ে নেয়া হবে মাসটি। তবে দেশের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে দুই সপ্তাহ আগে মুক্তি পাওয়া শাকিব খানের ‘চালবাজ’ ছবিটিই চালাতে দেখা যাচ্ছে। যদিও এটি বাংলাদেশি নয়, ভারতীয় ছবি। সাফটা চুক্তির আওতায় বাংলাদেশে মুক্তি দেয়া হয়েছে।

শাকিব-শুভশ্রী জুটির দ্বিতীয় ছবি এটি। পরিচালনা করেছেন কলকাতার জয়দ্বীপ মুখার্জি। বলা হচ্ছে, এটিই চলতি বছরের এ পর্যন্ত সর্বাধিক অর্থ তুলে আনা ছবি। যদিও অনানুষ্ঠানিকভাবে পাওয়া তথ্য মতে, ছবিটি সর্বশেষ অর্থ তুলেছে ১.২৫ কোটি টাকা। ত

বে আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের দেয়া তথ্য নয় এটি। চালবাজের পর মুক্তি পায় উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘ধূসর কুয়াশা’ নামের একটি ছবি। এ পর্যন্ত মুক্তি পাওয়া এটিই শেষ ছবি। এর আর কোনো ছবি মুক্তি পায়নি। মাত্র ১০টি হলে মুক্তি পায় ছবিটি। ব্যবসা তো দূরের কথা, এটি দর্শকই টানতে পারেনি। ফলে ছবিটি কীভাবে মুক্তির সপ্তাহ পার করল তার খবর রাখেনি কেউ।

এবার আসা যাক ঈদের ছবির কথায়। কিছুদিন আগেও আলোচনায় ছিল শাকিব খান অভিনীত ‘ভাইজান এলো রে’। ছবিটি এবারের ঈদে দর্শক মাতাবে- এমনটিই সবার ভাবনায় ছিল। ঈদে মুক্তির লক্ষ্য নিয়েই ছবিটির নির্মাণ শুরু হয়।

কিন্তু না, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ছবিটি বাংলাদেশে ঈদে মুক্তি দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। কারণ এটি ভারতীয় ছবি। আমদানির মাধ্যমে দেশে মুক্তি দেয়া হবে। এদিকে উৎসবে বিদেশি ছবি মুক্তি ঠেকাতে আদালতে একটি রিট আবেদন করা হয়। আদালত উৎসবে বিদেশি ছবি মুক্তি না দেয়ার আদেশও দিয়েছেন। ফলে শাকিবের এ ছবিটি ঈদে মুক্তির ব্যাপারে অনিশ্চিত।

তাহলে কী দেশের শীর্ষ এ নায়কের কোনো ছবি ঈদে মুক্তি পাবে না? উত্তর হচ্ছে, পাবে। শাকিব খান শুধু ভারতীয় ছবিতেই অভিনয় করেন, তা নয়। দেশের ছবিগুলোতেও নিয়মিত অভিনয় করছেন। প্রতি উৎসবে তার অভিনীত ছবি দর্শকদের মাঝে উৎসবের আমেজ বাড়িয়ে দেয় বহুগুণ।

তাই বিগত ক’বছর ধরে প্রেক্ষাগৃহ মালিকরা এ নায়কের অভিনীত ছবি চালানোর জন্যই মুখিয়ে থাকেন। ‘ভাইজান এলো রে’ না এলেও উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’ এবং আশিকুর রহমানের ‘সুপার হিরো’ ছবি মুক্তি পাচ্ছে ঈদে।

ছবি দুটির মধ্যে ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’ ঈদে যে মুক্তি পাবে এটা প্রায় নিশ্চিত করেছেন এর প্রযোজনা সংস্থা শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খান। তিনি বলেন, “সবকিছু ঠিক থাকলে ঈদুল ফিতরে মুক্তি পাবে ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’। ইতিমধ্যে সেই প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে। আমরা ছবিটির সেন্সর হওয়ার পরই চূড়ান্ত প্রচারণায় নামব।” এ ছবিতে শাকিবকে দেখা যাবে চট্টগ্রামের বুলিতে, আর নায়িকা বুবলীর ঠোঁটে শোনা যাবে নোয়াখালীর আঞ্চলিক ভাষা। এ ছবিতে আরও আছেন মৌসুমী ও ওমর সানী। অন্যদিকে ‘সুপারহিরো’ একটি মিশননির্ভর ছবি। এতে শাকিব-বুবলী দু’জনকেই মারকুটে দেখা যাবে। কারণ এটি থ্রিলারধর্মী ছবি।

এদিকে ঈদে মুক্তির তালিকায় রয়েছে রায়হান রাফি পরিচালিত ‘পোড়ামন-টু’ ছবিটি। এটি প্রযোজনা করেছে জাজ মাল্টিমিডিয়া। ইতিমধ্যে ছবিটি নিয়ে দর্শকদের মাঝে আগ্রহ দেখা গেছে। এ ছবির মাধ্যমে নাট্যাভিনেতা সিয়ামের বড় পর্দায় অভিষেক হচ্ছে।

তরুণদের মধ্যে সিয়ামের একটা জনপ্রিয়তা ইতিমধ্যে হয়ে গেছে। অন্যদিকে ছবিটির গল্প পুরোপুরি বাংলাদেশের গ্রামীণ প্রেক্ষাপটে বলেই জানিয়েছেন পরিচালক। আওয়াজ দিলেও ঈদে আসবে কিনা সেটা এখনও নিশ্চিত করে জানায়নি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান।

এ বিষয়ে ছবির প্রযোজক আবদুল আজিজ বলেন, ‘উৎসবে ছবি মুক্তি দিলে ছবির দর্শক বেশি পাওয়া যায়। পোড়ামন-টু একটি ভালো মানের ভালো গল্পের ছবি। এমন ছবি যদি ব্যবসাসফল না হয়, তাহলে আমরা ছবি বানানোর আগ্রহ হারিয়ে ফেলব।

তাই ছবিটি যেন ব্যবসা সফল হয় সে কথা মাথায় রেখেই মুক্তি দেয়া হবে। তবে ঈদে ছবিটি মুক্তি দেব কিনা সেটা এখনই নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছি না।’ এদিকে পরীমনি ও কায়েস আরজুকে নিয়ে ছবি নির্মাণ করেছেন শামিমুল ইসলাম শামীম।

ইতিমধ্যে ঈদে ছবিটি মুক্তি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন এ নির্মাতা। তবে দিন শেষে দেখতে হবে কার ছবি মুক্তি পায়। তাই ঈদে কোন ছবিটি মুক্তি পায় সেটি এখনই নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না। এ জন্য দর্শককে আগামী ঈদ পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য