দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বিগত ৪ মাসের বকেয়া বেতন ভাতার দাবীতে দিনাজপুরের সেতাবগঞ্জ চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারীরা এমডির কার্যালয় ঘেরাও করে মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এএম আল ইমরান ও মহা-ব্যবস্থাপক (অর্থ) মোঃ সাইফুল ইসলামকে ঘন্টাখানেক অবরুদ্ধ করে রাখেন।
গতকাল বুধবার সকালে দিনাজপুরের সেতাবগঞ্জ চিনিকলে এ ঘটনা ঘটে।

চিনিকলের শ্রমিক-কর্মচারীরা অভিযোগ করেন, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী মাস থেকে চলতি মে মাস পর্যন্ত দীর্ঘ ৪ মাসের তারা বেতন ভাতা পায়নি। বেতন ভাতা না পেয়ে তারা পরিবার পরিজন নিয়ে চরম মানবেতর জীবন যাপন করছেন। মিল কর্তৃপক্ষ বার বার শ্রমিকদের বেতন ভাতার আশ্বাসের পরও বেতন ভাতা না পাওয়ায় বেতন ভাতার বিপরীতে ৬০ টাকা কেজি দরে চিনি উত্তোলন করার সিদ্ধান্ত নেয়।

সে অনুযায়ী গত ১৫ মে চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শ্রমিক কর্মচারীদের নামে একটি চিনির ডিও’র অনুমোদন দেন। সেই অনুযায়ী গতকাল ১৬ মে সকালে শ্রমিক কর্মচারীরা চিনির ডিও নিয়ে এলে ব্যবস্থাপনা পরিচালক শ্রমিকদের জানান, চিনির দাম ৬০ টাকা থেকে ৫০ টাকা নির্ধারন করায় কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান শ্রমিকদের চিনির ডিও প্রদানে নিষেধ করেছেন।

এসময় শ্রমিক-কর্মচারীরা চিনির ডিওর দেওয়ার দাবী জানিয়ে বিক্ষোভ করে এবং এমডির কক্ষে এমডি এএম ইমরান ও মহা-ব্যবস্থাপনক (অর্থ) সাইফুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করে রাখেন। এসময় শত শত শ্রমিক-কর্মচারীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে দ্রুত শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন ভাতার বিপরীতে চিনিও ডিও প্রদান করার জন্য দাবীও জানান।

সেতাবগঞ্জ চিনিকল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি হাবিবুর রহমান দুলাল জানান, মিলের চিনি বিক্রি করে বকেয়া বেতন ভাতা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছেন মিলের এমডি।

এব্যাপারে সেতাবগঞ্জ চিনিকল এমডি এএম আল ইমরান জানান, সব ঠিক আছে চিনির দাম কমে যাওয়াতে চেয়ারম্যানের নির্দেশে শ্রমিক-কর্মচারীদের ডিও দেওয়া বন্ধ রয়েছে। এখন চিনির ডিও দিয়ে বেতন ভাতা পরিষদের সুযোগ নেই। তাই বেতন ভাতার ব্যবস্থা করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য