11_airlines searching -রহস্যময়ভাবে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার চার সপ্তাহ পর মালয়েশীয় বিমানের খোঁজে দক্ষিণ ভারত মহাসাগরে সবচেয়ে ব্যাপক অভিযান শুরু করেছেন অনুসন্ধানকারীরা। ব্যাটারি ফুরিয়ে যাওয়ার আগেই বিমানটির ব্ল্যাকবক্স খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন তারা। শনিবার শুরু হওয়া বৃহত্তম এ অভিযানে ১০টি সামরিক বিমান, তিনটি বেসামরিক জেটবিমান এবং ১১টি জাহাজ মহাসাগরের নির্ধারিত ২ লাখ ১৭ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকায় অনুসন্ধান শুরু করেছে। এলাকাটি অস্ট্রেলিয়ার পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর পার্থ থেকে ১৭শ’ কিলোমিটার উত্তরপশ্চিমে অবস্থিত। তদন্তকারীদের বিশ্বাস ৮ মার্চ এই এলাকাটিতেই ২৩৯ জন আরোহীসহ মালয়েশীয় এমএইচ ৩৭০ বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে। অভিযান সমন্বয়কারী অস্ট্রেলীয় কর্তৃপক্ষের প্রধান অবসরপ্রাপ্ত এয়ার চিফ মার্শাল আক্সগুস হিউস্টন বলেন, “ছয় সপ্তাহের মধ্যেও যদি কিছু না পাই আমরা অনুসন্ধান চালিয়ে যাব, কারণ বিমানটিতে এমন অনেক কিছুই ছিল যা ভাসতে পারে।” “শেষ পর্যন্ত কোনো একটি কিছু পাওয়া যাবে যা আমাদের তল্লাশি এলাকাকে ছোট করে আনবে বলে মনে করছি আমি।” বিমান নিখোঁজ হওয়ার কারণ হিসেবে যান্ত্রিক গোলযোগের সম্ভাবনা অস্বীকার করেনি তদন্তকারী কর্তৃপক্ষ। কিন্তু সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে তারা দাবি করছেন, সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়াসহ বিভিন্ন বিষয় থেকে ধারণা পাওয়া গেছে বিমানটি কেউ সচেতনভাবে এর গন্তব্যস্তল থেকে হাজার হাজার মাইল দূরে উড়িয়ে নিয়ে গেছেন। ঘটনার দিন শনিবার মধ্যরাতে মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুর থেকে চীনের রাজধানী বেইজিংয়ের পথে রওয়ানা হওয়ার এক ঘণ্টার মধ্যেই নিয়ন্ত্রণকক্ষের সঙ্গে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে হারিয়ে যায় বোয়িং কোম্পানির তৈরি অত্যাধুনিক ৭৭৭ বিমানটি। তল্লাশি অভিযানে সোনার (সাউন্ড নেভিগেশন এন্ড রেঞ্জিং) প্রযুক্তি সমৃদ্ধ দুটি জাহাজ আছে। এ দুটি জাহাজ বিমানটির ব্ল্যাকবক্স খুঁজে পেতে সাহায্য করতে পারে। ব্ল্যাকবক্সটি খুঁজে পাওয়া গেলে এতে ধারণকৃত কথোপকথন ও অন্যান্য তথ্য থেকে বিমানটির ঠিক কী হয়েছিল তা জানা যাবে। ব্ল্যাকবক্সে একটি অবস্থান জানান দেয়ার যন্ত্র (লোকেটর বেকন) লাগানো আছে। এটি পানির নিচে থাকা অবস্থায় চারপাশে একটি ইলেট্রনিক ‘পিং’ শব্দ ছড়িয়ে দেয়। কিন্তু এর ব্যাটারির মেয়াদ মাত্র ৩০ দিন হওয়ায় মহাসাগরের এত বড় এলাকায় ব্ল্যাকবক্সটির অবস্থান চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে অনিশ্চয়তাও থেকে যাচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য