দখলীকৃত ফিলিস্তিনের জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধন উপলক্ষে সোমবার আজানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ইসরায়েল। জেরুজালেম পৌর কর্তৃপক্ষ জানায়, দূতাবাস উদ্বোধনের অনুষ্ঠান নির্বিঘ্ন করতেই আজনকে ওই দিনের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

গত বছরের ৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের একক রাজধানীর স্বীকৃতি দেন। বিশ্বজুড়ে নিন্দা আর তুমুল প্রতিবাদের মধ্যেও দূতাবাস স্থানান্তরের সিদ্ধান্তে অনড় থাকে যুক্তরাষ্ট্র। ফিলিস্তিনিদের ব্যাপক বিক্ষোভের মধ্যেই সোমবার জেরুজালেমে দূতাবাস স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করে যুক্তরাষ্ট্র। পবিত্র শহর জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের উৎসবের কথা উল্লেখ করে জেরুজালেম পৌরসভার পক্ষ থেকে নোটিশ দেওয়া হয়। নোটিশের নির্দেশনায় সোমবার মুসলিমদের নামাজের আগে দেওয়া আজান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু জেরুজালেমে দূতাবাস স্থানান্তরের প্রশংসা করে একে ‘ঐতিহাসিক’ মুহুর্ত বলে অ্যাখ্যা দিয়েছেন। নেতানিয়াহু বলেন, ‘ কী আনন্দের দিন! প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, ইতিহাসকে স্বীকৃতি দেওয়ার মাধ্যমে আপনি ইতিহাস রচনা করেছেন।’ নেতানিয়াহু বলেন, ‘আজ এখানে পৃথিবীতে সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্র, আমাদের সবচেয়ে ভালো মিত্র যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস চালু হলো।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই শহরে দূতাবাস খোলার মাধ্যমে সর্বত্র সত্য ছড়িয়ে দেবে’।

জেরুজালেমে হোয়াইট হাউসের দুই গুরুত্বপূর্ণ উপদেষ্টা ট্রাম্পের জামাতা জ্যারেড কুশনার ও মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্প যখন সঙ্গীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষ করছিলেন, ফিলিস্তিনিরা তখন হতাহতদের নিয়ে ব্যস্ত। সোমবার দূতাবাস স্থানান্তরের প্রতিবাদে জোরালো হওয়া বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করতে সীমান্ত এলাকার ওই বিক্ষোভে অংশ নেন লাখো মুক্তিকামী ফিলিস্তিনি। এদিন নিহত ৫৮ ফিলিস্তিনিকে নিয়ে গ্রেট রিটার্ন মার্চ কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে নিহত হওয়া ফিলিস্তিনির সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য