ভারতের জম্মু ও কাশ্মির রাজ্যে বিক্ষোভকারীদের ছোড়া পাথরের আঘাতে এক ভারতীয় পর্যটক মারা গেছেন।

চেন্নাই থেকে আসা কয়েকজন পর্যটক কাশ্মিরের জনপ্রিয় স্কি পর্যটন এলাকা গুলমার্গে যাওয়ার পথে তাদের গাড়ি প্রতিবাদকারীদের নিক্ষিপ্ত পাথরের মুখে পড়ে যায় বলে বিবিসি উর্দুকে জানিয়েছে পুলিশ।

এ সময় গাড়ির আরোহী ২২ বছর বয়সী আর থিরুমানি মাথায় একটি পাথর এসে পড়লে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে হাসপাতালে তিনি মারা যান বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সোমবার সকালে রাজ্যের রাজধানী শ্রীনগরের নিকটবর্তী নারবালে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। এ সময় ১৯ বছর বয়সী স্থানীয় এক নারীও আহত হন।

স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টায় থিরুমানিকে হাসপাতালে নেওয়া হয়, পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার বিষয়ে একটি তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ, তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

কাশ্মিরের বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর ঘন ঘন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটলেও বিক্ষোভকারীরা সাধারণত পর্যটকদের নিশানা করেন না।

১৯৮৯ সাল থেকে মুসলিম প্রধান রাজ্যটিতে ভারতীয় শাসনের বিরুদ্ধে সশস্ত্র লড়াই চলছে।

থিরুমানির মৃত্যুর পর হাসপাতালে গিয়ে তার লাশ দেখার পাশাপাশি তার পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন জম্মু ও কাশ্মিরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি।

এ সময় হামলাটিকে ‘হৃদয় ভেঙে দেওয়া’ বলে বর্ণনা করেছেন তিনি।

এ ঘটনায় কাশ্মিরের পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িত অনেকেও উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছেন।

ট্যুর অপারেটর তারিক আহমদ বলেছেন, “এটি সহ্য করা যায় না। কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই পর্যটকদের রক্ষা করতে হবে। চলমান সংঘাতে এমনিতেই শিল্পটি ধুঁকছে।”

এক সপ্তাহ আগে উত্তেজিত একদল বিক্ষোভকারীর নিক্ষিপ্ত পাথরে একটি স্কুলবাসে থাকা দুই শিক্ষার্থীও আহত হয়েছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য