দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। গড় পাশের হার ৭৭ দশমিক ৬২ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ হাজার ৭৫৫ জন। তবে এবারে পাশের হার কমেছে ও জিপিএ-৫ প্রাপ্তির হার বেড়েছে। রোববার (৬ মে) দুপুর সাড়ে ১২টায় পরীক্ষার ফল ঘোষণা করেন বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. তোফাজ্জুর রহমান।

দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. তোফাজ্জুর রহমান জানান, এই বোর্ডের অধীনে ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষায় ১ লাখ ৮৭ হাজার পরীক্ষার্থীর মধ্যে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ১ লাখ ৮৬ হাজার ৬৪৪ জন পরীক্ষার্থী। এদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১ লাখ ৪৪ হাজার ৮৭৬ পরীক্ষার্থী। গড় পাশের হার ৭৭ দশমিক ৬২ শতাংশ।

বরাবরের মত এবারেও ছাত্রীদের পাশের হার বেশি। ছাত্রীদের পাশের হার ৭৯ দশমিক ৫৪ শতাংশ আর ছাত্রদের পাশের হার ৭৫ দশমিক ৮১ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ হাজার ৭৫৫ জন। এদের মধ্যে ছাত্র ৫ হাজার ৬৮০ জন এবং ছাত্রী ৫ হাজার ৭৫ জন।

বিজ্ঞান বিভাগে ৮৪ হাজার ৩৩৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৭৬ হাজার ৪৩৭ জন। উত্তীর্ণদের মধ্যে ৪৩ হাজার ৪০০ জন ছাত্র ও ৩৩ হাজার ৩৭ জন ছাত্রী। বিজ্ঞান বিভাগে গড় পাশের হার ৯০ দশমিক ৬৩ শতাংশ।

মানবিক বিভাগে ৯৬ হাজার ৩৬৭ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৬৩ হাজার ৬৯৯ জন। এদের মধ্যে ২৫ হাজার ৯৮৫ জন ছাত্র ও ছাত্রী ৩৭ হাজার ৭১৪ জন। মানবিকে বিভাগে গড় পাশের হার ৬৬ দশমিক ১০ শতাংশ।

ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ৫ হাজার ৯১৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৪ হাজার ৭৪০ জন। এদের মধ্যে ৩ হাজার ২৩১ জন ছাত্র ও ছাত্রী ১ হাজার ৫০৯ জন। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে গড় পাশের হার ৭৯ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

এবারে গত বারের চেয়ে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে। গতবার জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৬ হাজার ৯২৯ জন, আর এবারে পেয়েছে ১০ হাজার ৭৫৫ জন। এবারে বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ হাজার ৫৪৫ জন। মানবিক বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০২ জন ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০৮ জন।

শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. তোফাজ্জুর রহমান জানান, এ বছর ৯৯৪ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। এছাড়া নকলের দায়ে ৮৭ জন পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে। কেউই পাশ করেনি এমন বিদ্যালয়ের সংখ্যা মাত্র ৫টি যা গতবার ছিল মাত্র ১টি। শতভাগ পাশ করেছে এমন বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৮৪ যা গতবারে ১৬৬টি। তিনি জানান, গণিতে প্রায় ১৯ হাজার পরীক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছে। তবে গণিতের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আগামীতে আরো ভাল ফলাফল উপহার দেয়া হবে বলে জানান পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. তোফাজ্জুর রহমান।

উল্লেখ্য, এবারে দিনাজপুর বোর্ডে অধীনে রংপুর বিভাগের ৮টি জেলার ২ হাজার ৬১৯টি বিদ্যালয় ২৬০টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ১ লাখ ৮৬ হাজার ৬৪৪ পরীক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। উল্লেখ্য, এটি দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীনে নবম এসএসসি পরীক্ষা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য