ভারতের সঙ্গে পুনরায় আলোচনা শুরু করার চেষ্টা চালিয়েছিলেন পাকিস্তানের সেনাপ্রধান কামার জাভেদ বাজওয়া। কিন্তু তার ডাকে সাড়া দেয়নি নয়া দিল্লী। শীর্ষ ব্রিটিশ থিংক-ট্যাংক রয়াল ইউনাইটেড সার্ভিস ইন্সটিটিউট(রুসি)এর এক প্রতিবেদনে এ কথা উল্লেখ করা হয়। বলা হয়, পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর নেতারা ভারতের সঙ্গে শান্তি আলোচনা করতে ইচ্ছা প্রকাশ করছিলেন।এ খবর দিয়েছে জি নিউজ।

খবরে বলা হয়, বাজওয়ার প্রস্তাবের বিশ্লেষণ করেছে রয়াল ইউনাইটেড সার্ভিস ইন্সটিটিউট(রুসি)। প্রতিবেদনটি লিখেছেন রুসি’র পাকিস্তানী সদস্য কামাল আলম।প্রতিবেদনটিতে উল্লেখ করা হয় যে, এই প্রতিবেদনটি তাদের নিজস্ব কোন মতামত নয়।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, জ্যেষ্ঠ পাকিস্তানী কর্মীরা, সেনাবাহিনীর চিফ অফ স্টাফ কামার জাভেদ বাজওয়ার নেতৃত্বে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে, শান্তি ও অগ্রগতির মাধ্যম হচ্ছে ভারতের সঙ্গে সামরিক সহযোগিতা। যদিও দুই দেশের মধ্যে সাম্প্রতিক সময়ে কাশ্মীর নিয়ে লড়াই তীব্র আকার ধারণ করেছে। তবুও পাকিস্তানের জেনারেলরা আলোচনায় বসতে চেয়েছিল ও অনুভব করতে চেয়েছিল যে, বল এখন ভারতের কোটে।

কামাল আলম প্রতিবেদনটিতে, সাম্প্রতিক বাজওয়ার নেয়া বেশ কয়েকটি পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে, মার্চ মাসে প্রথমবারের মতন পাকিস্তান দিবসে সামরিক কুচকাওয়াজে ইসলামাবাদে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের সহকারী দূতকে নিমন্ত্রণ জানানো হয়। এর দুই সপ্তাহ পরে বাজওয়া বলেন, তিনি ভারতের সঙ্গে শান্তি ও সমৃদ্ধি চান।

আলম তার প্রতিবেদনে লিখেন, ভারতের প্রতি পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর মনোভাবের এমন পরিবর্তন দেখা যায়, ২০১৬ সালের নভেম্বরে বাজওয়া বাহিনীটির নেতৃত্বে আসার পর থেকে।

প্রতিবেদনে লেখক ভারতকে নিয়ে লিখেন, এখন পর্যন্ত পাকিস্তানের আফগান-ভারতীয় ব্যবসা বিষয়ে আলোচনার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে ভারত। তবে পাকিস্তানের চেষ্টা অব্যাহত থাকলে কোন এক সময় ইসলামাবাদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি হতে পারে দিল্লী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য