ইয়েমেনের প্রত্যন্ত অঞ্চলে অবস্থিত সকোত্রা দ্বীপের বিমানবন্দর ও সমুদ্রের দখল নিয়ে নিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাহিনী। এর একদিন আগে, বৃহস্পতিবার দ্বীপটিতে চারটি সামরিক যান ও শতাধিক সেনা মোতায়েন করেছিল আমিরাত। ইয়েমেনের এক সরকারি কর্মকর্তা আমিরাতের এমন পদক্ষেপের প্রতি নিন্দা জানিয়েছে।এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।

সরকারি কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে খবরে বলা হয়, সংযুক্ত আরব আমিরাতের সেনারা ইয়েমেনের প্রধানমন্ত্রী আহমেদ ওবেইদ বিন দাঘরসহ আরো ১০ মন্ত্রীকে শুক্রবার সকোত্রা থেকে বের হতে দেয়নি। ওই কর্মকর্তা বলেন, ইয়েমেনি সরকারের উপস্থিতি থাকা সত্ত্বেও সংযুক্ত আরব আমিরাত সকোত্রা দ্বীপের বিমানবন্দর ও সমুদ্রের দখল নিয়ে নিয়েছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাত সকোত্রায় যা করছে তা হচ্ছে একটি আগ্রাসী পদক্ষেপ। ঘটনাটি তদন্ত করতে সকোত্রায় তদন্তকারী পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছে সৌদি আরব।

সকোত্রা, ইউনেস্কো’র ঐত্যিহ্যবাহী স্থানের তালিকায় স্থান পাওয়া দ্বীপ। এর জনসংখ্যা প্রায় ৬০ হাজার। এর বিমানবন্দরে একটি ৩ হাজার মিটার লম্বা রানওয়ে আছে। যুদ্ধ বিমান ও বড় আকারের সামরিক বিমান আসা যাওয়ার জন্য তা একেবারে আদর্শ দৈর্ঘ্য।

সংযুক্ত আরব আমিরাত সম্প্রতি দ্বীপটি ৯৯ বছরের জন্য ইজারা নিয়েছে ও নিশ্চিত করেছে যে, সেখান থেকে সামরিক অভিযান চালাবে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছে যে দ্বীপটির ভবনগুলোতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের পতাকা ও ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের ছবি দেখা যায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য