আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: বয়স্ক প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ে না দিয়ে অন্যত্র বিয়ের ব্যবস্থা করায় পরিবারের সঙ্গে অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে বিথী রানী রায় (১৭) নামে এক স্কুলছাত্রী।

সোমবার (৩০ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৯টায় তাকে স্থানীয় শ্মশানে দাহ করা হয়।

বিথী রানী রায় লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের কান্তশ্বরপাড়া (ডাকাত পাড়া) গ্রামের বর্গাচাষি নিরঞ্জন রায়ের মেয়ে। সে চলতি বছর আদিতমারী কেবি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, প্রভাবশালী প্রতিবেশী রত্নেশ্বর বর্মনের (৫০) সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিথীর মন দেয়া-নেয়া চলছিল। বিষয়টি জানাজানি হলে বিথীকে অন্যত্র বিয়ে দেওয়ার জন্য পরিবার থেকে পাত্র খোঁজা শুরু হয়।

রোববার (২৯ এপ্রিল) পরিবারের দেখা এক পাত্রের সঙ্গে বিয়ের বিষয়টি জানতে পেয়ে প্রতিবাদ করে বিথী। এতে বাবা-মা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে মারধর করে এবং রত্নশ্বরকে ভুলে যেতে বলে।

ওই দিন রাতেই অভিমান করে গলায় রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে বিথী। সোমবার সকালে পরিবারের লোকজন তার ঝুলন্ত মরদেহ দেখে তড়িঘড়ি করে দাহ করার প্রস্তুতি নেয়।

এসময় স্থানীয়রা মোবাইল ফোনে বিষয়টি আদিতমারী থানায় অবগত করে।
তবে আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেশ্বর রায় ঘটনাস্থলে আসার আগেই বিথীর মরদেহ দাহ করা হয়। মারধর ও আত্মহত্যার আলামত নষ্ট করে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বিথীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য