রজব আলী, ফুলবাড়ী থেকেঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর দৌলতপুর ইউনিয়নের মধ্যমপাড়া রাস্তার বৃহদাকৃতির কাঁঠাল গাছ সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ মন্ডল কর্তৃক কেটে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত শনিবার (২৮এপ্রিল) সকাল থেকে ১হাজার ৬০০টাকা মজুরি চুক্তিতে ওই কাঁঠাল গাছটি কাটা হলেও এ বিষয়ে কিছুই জানেন না ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পাতিয়ার রহমান।

স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে গত শনিবার (২৮এপ্রিল) দুপুর ১টায় মধ্যমপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় চারজন মজুর রাস্তার ওই কাঁঠাল গাছটির ডালপালা কেটে রাস্তার পার্শ্বে পালা করে রেখে মূল গাছটি কাটতে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

গাছ কাটার কাজে নিয়োজিত মজুর খয়েরবাড়ি গ্রামের মিজানুর রহমান ও শিবপুর গ্রামের শফিকুল ইসলাম বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ মন্ডলের সাথে ১হাজার ৬০০টাকা চুক্তিতে সকাল থেকে গাছটি কাটছেন। গাছ কাটা শেষ হলে গাছের গোলাইসহ ডালপালা যা কিছু আছে সবগুলো চেয়ারম্যানের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হবে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান ক্ষমতাধর ব্যক্তি। তার কোন কাজের প্রতিবাদ করলে বিপদ হতে হবে এমন আশঙ্কায় কেউই মুখ খুলতে সাহস পান না।

সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য পাতিয়ার রহমান মুঠোফোনে বলেন, মধ্যমপাড়া এলাকার রাস্তার কাঁঠাল গাছ কাটার বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। কী কারণে রাস্তার গাছ চেয়ারম্যান কেটে নিয়ে গেছেন তাও তিনি বলতে পারছেন না।

ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ মন্ডল মুঠোফোনে বলেন, পূর্বের রাস্তাটি ভেঙ্গে পুকুরে যাওয়ায় ব্যক্তি মালিকানা জমিও ওপর দিয়ে রাস্তা করে দেওয়া হয়েছে। কাঁঠাল গাছটি ব্যক্তি মালিকানা হওয়ায় গাছের মালিক গাছ কেটে নিয়ে গেছে। রাস্তার জায়গার মালিক টিএন্ডটিতে চাকরির কারণে এলাকায় থাকেন না। তাই গাছ কাটার দরদাম করে দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুস সালাম চৌধুরী মুঠোফোনে বলেন, রাস্তার গাছ কাটার বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। রাস্তার গাছ চেয়ারম্যান ও মেম্বার কেউই কাটতে পারবে না। রাস্তার গাছ কেটে নিলে তদন্ত সাপেক্ষে জড়িত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য