দিনাজপুর সংবাদাতাঃ “উন্নয়ন আর আইনের শাসনে এগিয়ে চলছে দেশ, লিগ্যাল এইডের সুফল পাচ্ছে সারা বাংলাদেশ” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ২৮ এপ্রিল জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা জেলা কমিটির দিনাজপুর আয়োজিত জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ১০টায় জেলা লিগ্যাল এইড অফিস প্রাঙ্গণ হতে বর্ণাঢ্য র‌্যালীর নেতৃত্ব দেন সিনয়র জেলা ও দায়রা জজ দিনাজপুর এবং জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা জেলা কমিটি দিনাজপুরের চেয়ারম্যান হোসেন শহীদ আহমদ, জেলা প্রশাসক ড. আবু নঈম মুহাম্মদ আবদুছ ছবুর, পুলিশ সুপার মোঃ হামিদুল আলম বিপিএম।

সকাল ১১টায় জেলা জজ আদালত দিনাজপুর এর সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সনিয়র জেলা ও দায়েরা জজ এবং জাতীয় আইনগত সংস্থা জেলা কমিটি দিনাজপুরের হোসেন শহীদ আহমেদ।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার (অতিঃ দায়িত্ব) ও সিনিয়র সহকারী জজ শিশির কুমার বসু। সম্মানীত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক ড. আবু নঈম মুহাম্মদ আবদুছ ছবুর, পুলিশ সুপার মোঃ হামিদুল আলম বিপিএম, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল দিনাজপুরের জেলা জজ মোঃ জালাল উদ্দীন, স্পেশাল জজ মোঃ মাহমুদুল করিম, নারী ও শিশু আদালতের পিপি এ্যাডঃ মেহেবুব আলম লিটন চৌধুরী, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইসমাইল হোসেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোঃ নুরুজ্জামান জাহানী, সাধারণ সম্পাদক মোঃ তহিদুল হক সরকার, পাবলিক প্রসিকিউটর বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল ইসলাম জুগলু, সরকারী কৌশলী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মীর ইউসুফ।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ব্লাস্ট দিনাজপুর ইউনিটের স্টাফ ল’ইয়ার এ্যাডঃ পিনাকা পানি রায়, ঠাকুরগাঁও জেলা কারাগারের দীলিপ কুমার রায়, প্যানেল ল’ইয়ার এ্যাডঃ নাগমা পারভীন জেবা, এ্যাডঃ খাদেমুল ইসলাম ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সহ-সভাপতি এ্যাডঃ আমিনুল হক পুতুল।

বক্তারা বলেন, বর্তমানে দেশের উচ্চ ও নি¤œ আদালতগুলোতে প্রায় ৩৩ লাখের বেশী মামলা চলমান আছে এবং দিন দিনি মালমলার সংখ্যা আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে। মামলার জট কমাতে বিকল্প পদ্ধতিতে বিরোধ নিষ্পত্তি ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে। বিচার প্রক্রিয়ার প্রতিটি স্তরই আইনের ছকে বাঁধা ফলে মামলা নিষ্পত্তি করতে অনেক সময় লাগে।

এতে বাদী-বিবাদী উভয়ই মানসিক চাপে থাকার পাশাপাশি অর্র্থিকভাবেও নিঃস্ব হয়ে পরেন। মানুষের ন্যায় বিচার পাওয়ার ক্ষেত্রে বিচারকদের আরো আন্তরিক হতে হবে। আমাদের দেশের দরিদ্র মানুষরা জানেনা সরকারি খরচে আইনী সেবা পাওয়া যায়। সে ব্যাপারে সকলকে সচেতন করতে আইনজীবী, পুলিশ প্রশাসন ও গণমাধ্যমকর্মীদের এগিয়ে আসতে হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য