দিনাজপুর সংবাদাতাঃ উৎসবমূখর পরিবেশে ও কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে শনিবার (২৮ এপ্রিল) দিনাজপুর জেলা মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন-২০১৮ সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ৯টা হতে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত নির্বাচনে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ করা হয়।

এই নির্বাচনে ২২টি পদের মধ্যে সভাপতিসহ ২১টি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাধারণ সম্পাদক পদে সদ্য বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক মো. ফজলে রাব্বি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বাকী ২১টি পদে ৭৪ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এতে ৪৬৩৩ জন মোটর শ্রমিক ভোট প্রদান করেন।

এদিকে জেলা মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনকে ঘিয়ে প্রশাসকের পক্ষ থেকে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। শহরের সুইহারীস্থ চেহেলগাজী শিক্ষা নিকেতন স্কুল এন্ড কলেজে অনুষ্ঠিত নির্বাচন কেন্দ্রসহ আশপাশের এলাকায় বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়। সাদা পোষাকে গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন দায়িত্ব পালন করেন। পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৩ জন ম্যাজিস্ট্রেট সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করেন।

মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন উপলক্ষে সুইহারী ও এর আশপাশের এলাকার সব দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দিনাজপুরে সবধরনের যাত্রিবাহী যানবাহন চলাচলও বন্ধ ছিল।

সভাপতি পদে ৪জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তারা হলেন-খন্দকার হবিবর রহমান বাদশা (মোটর প্রতিক), মো. আব্দুল হাকিম (উট), এম রফিক (ছাতা) ও মোহাম্মদ আলী (বটগাছ)। সহ-সভাপতি পদে ৪ জন প্রার্থী হলেন-মো. সাইফুর রাজ চৌধুরী (পানি জাহাজ), মো. রওশন আলী (লাঙ্গল), মো. তৈয়ব আলী (ট্রাক্টর) ও সৈয়দ শওকত আলী তোতা (হারিকেন)।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে ৪ জন প্রার্থী হলেন-গোলাম মোস্তফা বাবু (মশাল), মো. আঃ কাইয়ূম শেখ চেয়ার), মো. এনামুল হক (মোমবাতি) ও শেখ বাদশা (গামছা)। সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে ৪ জন প্রাথী হলেন-মো. শাহিনুর ইসলাম (গাভী), মো. মিজানুর রহমান (টায়ার), মো. মীর হোসেন (জোড়া কবুতর) ও মো. ইলিয়াস হোসেন মুন্না (কুড়াল)।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ৭ জন প্রাথী হলেন-মো. সাহাবুব আলম (খেজুরগাছ), মো. আফজাল আলী টুন্না (বন্দুক), মো. খোকন (রিক্সা), মো. শরিফুল আলম (উড়োজাহাজ), মো. আদম আলী মানিক (ক্যামেরা), মো. আনোয়ার হোসেন (বাঘ) ও উদয় চক্রবর্তী (বই)। সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ৩ জন প্রাথী হলেন-মো. রমজান আলী (স্টিয়ারিং), দিলিপ সরকার পলু (জগ) ও মো. শরিফ (ডাব)।

অর্থ সম্পাদক পদে ২ জন প্রাথী হলেন-মো. ইব্রাহিম (তালা) ও আব্দুস সামাদ আলী (মোবাইল ফোন)। সড়ক সম্পাদক পদে ৪ জন প্রাথী হলেন-মো. লিটন ইসলাম জাদ (কুলা), মো. সামসুল আলম (নৌকা), মো. মর্তুজা (হরিণ) ও মো. জাকির হোসেন (ঘোড়া)। সহ-সড়ক সম্পাদক পদে ৩ জন প্রাথী হলেন-মো. আফজাল হোসেন (সিংহ), মো. সিরাজুল ইসলাম (অটো) ও মো. ইকবাল হোসেন মিন্টু (কাপ-পিরিচ)।

দপ্তর সম্পাদক পদে ২ জন প্রাথী হলেন-মো. রহিদুল ইসলাম রেজু (চাবি) ও মো. রাজা মিয়া (মই)। সমাজ কল্যাণ সম্পাদক পদে ৩ জন প্রাথী হলেন-মো. সোহেল (টেবিল), মো. আলম (গীটার) ও মো. আঃ সালাম (সেলাই মেশিন)। প্রচার সম্পাদক পদে ৪ জন প্রাথী হলেন-মো. জহুরুল ইসলাম (মাছ), মো. রফিকুল ইসলাম (ঘুড়ি), মো. জনি (প্রদীপ) ও মো. আপেল মাহমুদ (মোটরসাইকেল)। ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে ৪ জন প্রাথী হলেন-মো. জাহিদ হাসান (ব্যাট-বল), মো. মোশারফ হোসেন (টিউবওয়েল), মো. মিন্টু রেলগাড়ী) ও মো. লিটন (মিনার)।

এছাড়া কার্যকরি সদস্যের ৭টি পদে ২৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী হলেন-মো. আব্দুস সালাম জমশেদ (প্রজাপতি), মো. বাদশা আলী (হুক্কা), মো. নুর আলম শেখ (তারা) , মো. রিন্টু (হাতি), শ্রী প্রেমহরি রায় (টেলিভিশন), মো. সিরাজুল ইসলাম সিরাজ (টেলিফোন), মো. আবুল কালাম আজাদ (কলস), মো. হাসিনুর রহমান কালু (কড়াই), মো. আলমগীর হোসেন (বাইসাইকেল), মো. আনোয়ার হোসেন (কুড়েঘর), মো. নাসির হোসেন রতœ (তলোয়ার), মো. আনোয়ার আলী (পাখা), মো. হাবিবর রহমান (মোরগ), মো. হবিবর রহমান (আম), মো. এমাজ (হাঁস), মো. এখলাস (ভ্যান), মো. হাসমত আলী (চিরুনী), মো. সবুজ (চশমা), মো. আহিদুল ইসলাম (হাতুড়ি), মো. নজরুল ইসলাম (ঢোল), মো. মেহরাজ মিয়া জীবন (কাঁঠাল), মো. শাকিল (ডালিম), মো. মুন্না (শাপলা), মো. মাহাবুব আলম (আনারস), মো. উজির (হ্যান্ডমাইক) ও ফারুক আহম্মেদ (ধানেরশীষ)।

উল্লেখ্য, জেলা মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে ৪৬৩৩ মোটর শ্রমিক ভোট প্রদান করেন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ২১৯৯ জন, চিরিরবন্দরে ৪৩৬, পার্বতীপুরে ৩৮২, ফুলবাড়ীতে ৩০৩, নবাবগঞ্জে ৫৪, খানসামায় ৫২, ঘোড়াঘাটে ১৮৪, কাহারোলে ১৩১, বিরলে ৯৯, বোচাগঞ্জে ৯২, হাকিমপুরে ১৮৬, বীরগঞ্জে ২২০ ও বিরামপুরে ২৬৭ জন ভোটার ভোট প্রদান করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য