ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে অবাধে বিক্রি হচ্ছে গাইড বা সহায়ক ও নোট বই।এ সব বই কিনতে শিক্ষার্থীদের উৎসাহ দিচ্ছেন বিদ্যায়লের শিক্ষকরা।

ঘোড়াঘাট উপজেলার হাট-বাজারে বইয়ের দোকানে অবাধে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ গাইড বা সহায়ক ও নোট বই।

ঘোড়াঘাট উপজেলার রানীগঞ্জ, বাগেরহাট, পুরাতন বাজার, ওসমানপুর, বলাহার, ডুগডুগি হাট, হরিপাড়া, বলগাড়ী বাজারের বইয়ের দোকানে প্রকাশ্যে সরকার নিষিদ্ধ গাইড বা সহায়ক নোট বইয়ের জমজমাট ব্যবসা চলছে।

বিদ্যালয়ের কিছু সংখ্যক শিক্ষক প্রকাশনী সংস্থার কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে নিষিদ্ধ গাইড ও নোট বই।

ঘোড়াঘাট উপজেলার কয়েকটি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের যোগসাজশে সহকারী শিক্ষকরা প্রকাশনী সংস্থার কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ নিয়ে নিষিদ্ধ বই কিনতে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষার্থীদের বাধ্য করছেন।

বিশেষ করে বাংলা ব্যাকরন ও ইংরেজি গ্রামার। শ্রেনি কক্ষে শিক্ষার্থীদের জানানো হচ্ছে, প্রকাশনী সংস্থার বাংলা ব্যাকরন ও ইংরেজি গ্রামার থেকে পরীক্ষায় প্রশ্ন থাকবে।ফলে শিক্ষকদের পছন্দ বই কিনতে বাধ্য হচ্চে শিক্ষার্থীরা।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অতুল চন্দ্র রায় জানান, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গাইড ও নোট বই শিক্ষার্ধীদের পড়ানোর অভিযোগ প্রমানিত হলে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা নেওয়া হবে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ শাহাদৎ হোসেন প্রামানিক জানান,শিক্ষার্থীদের গাইড সহায়ক ও নোট বই পড়ানো নিষিদ্ধ। ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার টি.এম.এ.মমিন জানান, গাইড ও নোট বই পড়ানো বা গাইড ও নোট বই বিক্রির বিরুদ্ধে সরকারি বিধি মোতাবেক ব্যবস্হা নেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য