সুবল রায়, বিরল থেকেঃ দিনাজপুরের বিরলে এবারেও লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে লিচু চাষীরা গতবারের চেয়ে এবারে দ্বি-গুন লাভের আশা করেছেন।

তাই বাগান পরিচর্চা করে ব্যস্ত সময় পার করছেন লিচু চাষীরা। তবে জেলায় একটি লিচু গবেশনাগার ও সংরক্ষনের হিমাগার করার দাবী জানান কৃষকরা।

দিনাজপুর জেলার বিরল উপজেলা জুড়ে লিচুর আবাদ হয়ে থাকে। তার মধ্যে বিরল উপজেলার লিচু সু-স্বাদু ও উন্নত মানের।

এ এলাকার লিচুর গুণ ও মানে চাহিদা দেশ জুড়ে। বিরল উপজেলার বিশেষ করে মাধববাটীতে দেশের উৎকৃষ্টমানের লিচু উৎপাদন করে।

এছাড়া বিরল ও সদর উপজেলার প্রায় প্রতিটি বাড়ির ভিটা, উঠান, আঙ্গিনাতেও লিচুর গাছ লাগিয়ে থাকে লিচু প্রেমিকরা। তাই বেশী লাভের আশায় দিন-রাত পরিচর্চা করে আসছেন লিচু চাষীরা।

উপজেলা কৃষি উপজেলা কৃষি অফিসার আশরাফুল আলম জানান, ২৫৫০ হেক্টর জমিতে ছোট-বড় মিলে প্রায় ২২০০ লিচুর বাগান রয়েছে।

বোম্বাই, মাদ্রাজী, বেদানা, চায়না-থ্রি, চায়না-টু ও কাঁঠালি জাতের ফলন ভালো হয়েছে।

সর্ব বৃহৎ লিচু উৎপাদন কারী বিরল উপজেলায় লিচুর বাম্পার ফলন হওয়ায় এখান কার মানুষ অনেক খুশি।

কিন্তু দুর্ভাগের বিষয় দিনাজপুর জেলায় লিচু গবেশনাগার ও সংরক্ষনের কোন হিমাগার না থাকায় প্রতি বছর লিচু পচে নষ্ট হয়।

যার ফলে ক্ষতি গ্রস্থ হয় লিচু উৎপাদন কারী কৃষকরা। তাই দিনাজপুরে একটি লিচু সংরক্ষনের হিমাগার স্থাপনের দাবি উঠেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য