সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টায় টরন্টো শহরের নর্থ ইয়র্কের ইয়ং স্ট্রিট এবং ফিঞ্চ এভেনিউ এলাকায় পথচারীদের ওপর এক বেপরোয়া সাদা মিনিভ্যান চড়াও হলে দশ ব্যক্তি নিহত এবং ১৫ ব্যক্তি আহত হন। পুলিশ ঘাতক চালককে গাড়িসহ আটক করেছে। ২৫ বছর বয়সী এই ঘাতকের নাম আলেক মিনাসিয়ান। তিনি শহরের রিচমন্ডহিলের বাসিন্দা। তার লিঙ্কডইন প্রোফাইল ঘেটে জানা যায়, তিনি সেনেকা কলেজের ছাত্র।

সরকারের পক্ষ থেকে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তদন্তে বলা হয়েছে, ঘাতক আলেক কোনো সন্ত্রাসী দলের সদস্য নয় এবং তিনি রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার জন্য বৃহত্তর কোনো হুমকিও নয়। নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী রালফ গুডালে বলেন, এটা সংগঠিত সন্ত্রাসী চক্রান্তের অংশ নয়; এটা মারাত্মক দুর্ঘটনা।

ঘটনার পরপরই কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এক টুইটার বার্তায় বলেন, টরন্টোর ইয়ং এবং ফিঞ্চে লোমহর্ষক ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি আমরা সমবেদনা জানাই। ঘটনার পরপরই যারা সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন আমরা তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা খুব কাছ থেকে ঘটনাটি পর্যবেক্ষণ করছি।

এদিকে টরন্টো পুলিশের ডেপুটি চিফ পিটার ইয়ুন সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশ সবরকম আলামত খতিয়ে দেখছে। আগামী কিছুদিন হামলাস্থল পুলিশ পর্যবেক্ষণ করবে। ‘দীর্ঘ সময় ধরে বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করতে হবে’, বলছিলেন ইয়ুন। সেখানে অনেক প্রত্যক্ষদর্শী এবং নিরাপত্তা ক্যামেরা ছিল, তা থেকে অনেক তথ্য বেরিয়ে আসবে।

দুর্ঘটনার পর ৯১১-এ কল পাওয়ার ২৬ মিনিটের মধ্যে পুলিশ ঘাতককে আটক করতে সক্ষম হয় বলে বলেন পুলিশ চিফ মার্ক সান্ডারস।

‘এদিন অনেক পথচারী এবং প্রত্যক্ষদর্শী টরন্টোর চমৎকার রোদেলা আবহাওয়া উপভোগ করছিলেন’- বলছিলেন পুলিশের ডেপুটি চিফ ইয়ুন। পুলিশ হামলার শিকার ও তাদের পরিবার এবং প্রত্যক্ষদর্শীদের তথ্য জানানোর জন্য ২টি বিশেষ নম্বর চালু করেছে।

হামলার শিকার ব্যক্তিদের বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। সানিব্রুক হাসপাতালের পোস্ট করা এক টুইট বার্তায় বলা হয়, তাদের ট্রমা সেন্টারে ১০ জন ব্যক্তিকে নেওয়া হয়, যাদের মধ্যে ২ জনই মারা যান। এছাড়া ৫ জনের অবস্থা বেশ আশঙ্কাজনক।

রাইডার নামের যে কোম্পানির কাছ থেকে ঘাতক চালক গাড়িটি ভাড়া করেছিলেন তারা এক বিবৃতিতে তাদের সর্বাত্মক সহযোগিতার কথা জানায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য