২০১৫ সালে ফ্রান্সের প্যারিসে হামলাকারীদের মধ্যে একমাত্র জীবিত সন্দেহভাজন আব্দেসলামকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে বেলজিয়ামের আদালত। ২০১৫ সালের নভেম্বরে প্যারিসে হামলা চালিয়ে ১৩০ জনকে হত্যার পর ৪ মাস পালিয়ে ছিলেন আব্দেসলাম।

ব্রাসেলসে গ্রেফতার হওয়ার আগে পুলিশের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ বন্দুকযুদ্ধ চালিয়ে যান তিনি। সেই ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত করে আাব্দেসলামকে এই দণ্ড দেওয়া হয়েছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এই খবর জানিয়েছে।

২০১৫ সালের ১৩ নভেম্বর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে একযোগে কয়েকটি স্থানে আইএসের হামলায় নিহত হন ১৩০ জন। ওই হামলার অন্যতম সন্দেহভাজন সালাহ আবদেসালামকে ২০১৬ সালের মার্চ মাসে ব্রাসেলস থেকে গ্রেফতার করা হয়।

চার মাস পালিয়ে থাকার পর বেলজিয়ামের মোলেনবেক এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে দেশটির সন্ত্রাস বিরোধী পুলিশ। অভিযানের সময় পুলিশের সঙ্গে গোলাগুলি হলে প্রাণ হারান মোহাম্মেদ বেলকেইড।

আবদেসালাম এবং তার সহযোগী সোফিয়েন আয়ারিসহ পায়ে গুলিবিদ্ধ হন। পুলিশের ওপর আক্রমণের ঘটনায় আয়ারিকেও ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

২৬ বছর বয়সী আবদেসালাম ফরাসি নাগরিক হলেও দীর্ঘদিন ধরে বেলজিয়ামে বসবাস করছিলেন। সেখান থেকে গিয়েই তিনি প্যারিসে হামলা চালিয়েছিলেন। হামলার পর তিনি আবার ব্রাসেলসের ফ্ল্যাটে লুকিয়ে ছিলেন বলে ধারণা পুলিশের।

হামলা চালিয়ে পালিয়ে যাওয়া আসামি সালাহ আব্দেসলামকে ফ্রান্সের একটি পেট্রোল স্টেশনের সিসিটিভি ফুটেজে শনাক্ত করে পুলিশ।

ফ্রান্সের সংবাদ চ্যানেল বইএফএম টিভির বরাতে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে সে সময় বলা হয়, ওই ছবিটি পাওয়া গেছে প্যারিস হামলার পরের দিন (১৪ নভেম্বর, ২০১৫) সকালের তোলা ফুটেজ থেকে। ফুটেজে আব্দেসলামকে বেশ নিশ্চিন্ত ভঙ্গিতে পকেটে হাত ঢুকিয়ে হেঁটে যেতে দেখা যায়।

আব্দেসলাম ওইদিন ভোরেই তার দুই বন্ধুকে ফোন করে তাকে বেলজিয়াম নিয়ে যেতে বলেন। তারা প্যারিস থেকে ব্রাসেলস যাওয়ার পথে বেলজিয়াম সীমান্তের কাছে পেট্রোল স্টেশনে থামলে সিসিটিভি ক্যামেরায় তাদের দেখা যায়। পরে তাকে বেলজিয়ামে গ্রেফতার করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য