বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) সংবাদাতা ॥ বীরগঞ্জে অপহৃত শিশু ৬০ দিন পর জামালপুরের ঝালুরচর থেকে উদ্ধার এবং অপহরনের সাথে জড়িত ৩ জনকে গ্রেফতার করে ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

বীরগঞ্জ থানা সুত্রে জানা গেছে, মামলা তদন্তকারী অফিসার এসআই আমজাদ হোসেন তথ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে অনুসন্ধান চালিয়ে ২০ এপ্রিল জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ঝালুরচর এলাকা থেকে অপহরনের ৬০ দিন পর উদ্ধার করেছে। একই সাথে অপহরনের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে প্রতিবেশী ধর্ষক দুলু মিয়া, অপহরনকারী বাসুলী গ্রামের মৃত আছমত আলীর স্ত্রী হোসনেয়ারা ও জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ঝালুরচর এলাকার মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে শাহাজান আলীকে গ্রেফতার করে জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করেছে।

জানা গেছে, উপজেলার পাল্টাপুর ইউনিয়নের ভোগডোমা গুচ্ছগ্রামের আব্দুল জলিলের প্রতিবন্ধী মেয়ে পিয়ারা খাতুন (১৫) ফুসলিয়ে প্রতিবেশী ৩ সন্তানের জনক দুলু মিয়া একাধিক বার ধর্ষন করলে প্রতিবন্ধী পিয়ারা গর্ভবতী হয়। প্রতিবন্ধী পিয়ারা ধর্ষনের ঘটনাটি ফাঁস করে দেয়। ধর্ষক দুখুমিয়া বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় ১৪ অক্টোবর/১৭ইং পিয়ারার বাবা আব্দুল জলিল বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বিশেষ আদালতে অভিযোগ করে। যার জি.আর নং- ২৩৪/১৭। মামলা চলমান অবস্থায় প্রতিবন্ধী পিয়ারা গত ১৫ জানুয়ারী ১টি কন্যা সন্তানের জন্ম দেয়।

ধর্ষক দুলু মিয়া কৌশলে খানসামা উপজেলার বাসুলী গ্রামের মৃত আছমত আলীর স্ত্রী হোসনেয়ারার মাধ্যমে গত ১৮ ফেব্রুয়ারী সকালে মায়ের কোল থেকে শিশুটি অপহরন করে নিয়ে পালিয়ে যায়। শিশুটিকে না পেয়ে ১১মার্চ বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী পিয়ারার বাবা আব্দুল জলিল বাদী হয়ে আবার আদালতে শিশু অপহরনের অভিযোগ করেন। আদালত বিষয়টি আমলে নেয় এবং বিজ্ঞ বিচারকের নির্দ্দেশে ২৩ মার্চ থানায় শিশু অপহরন মামলা রুজু করা হয়। যার নং ১৭(০৩)১৮।

মামলা তদন্তকারী অফিসার এসআই আমজাদ হোসেন অপহরনকারী হোসনেয়ারাকে গ্রেফতার করে তাকে জিজ্ঞাসা বাদে তারই জবানবন্ধী ও তথ্য মোতাবেক ১৯ এপ্রিল জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ঝালুরচর এলাকা থেকে অপহৃত ৩ মাসের শিশুটিকে ৬০ দিন পর উদ্ধার করে ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। বীরগঞ্জ থানার ওসি সাকিলা পারভিন সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য