ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের রানীগঞ্জ বালিকা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের২জন শিক্ষিকা এবং ৩জন কর্মচারী ২০ বছর পর বেতন পেলেন।জানাগেছে, ১৯৯৮ সালে উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ৩টি ইউনিয়নের প্রান কেন্দ্রে নারী শিক্ষার প্রসারণের জন্য সিংড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃআব্দুল জোব্বার মন্ডল রানীগঞ্জ বাজার সংলগ্ন কশিগাড়ী মৌজায় রানীগঞ্জ বালিকা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় টি প্রতিষ্ঠা করেন।

প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল মান্নান মন্ডল,সহকারী শিক্ষক মোঃ তারেক হোসেন,মোছাঃ মুনজিলা বেগম,জাকিয়া আক্তার রুজি,মোছাঃ ফিরোজা বেগম শাহানাজ,নবম ও দশম শ্রেনি খোলার নির্মিত্তে সহকারী প্রধান শিক্ষক মনোরঞ্জন অধিকারী ভুট্টু,সহকারী শিক্ষক মোঃ আমিনুর রহমান নিয়োগ পায়।

সভাপতি ছিলেন সাবেক সচিব মোঃ দলিল উদ্দিন মন্ডল।পরবর্তী তে প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুর রেজ্জাক সাজু, সহকারী শিক্ষক (গনিত) মোঃ আশাদুজ্জামান রাশেদ, সহকারী শিক্ষক (কৃষি) মোছাঃ ফৌজিয়া আক্তার মেঘনা, সহকারী শিক্ষক (সমাজবিজ্ঞান ) মোছাঃ নারর্গীস তাজিমা, সহকারী শিক্ষক (জীববিজ্ঞান ), মোঃমুর্ত্তোজা মামুন,সহকারী শিক্ষক(কম্পিউটার) , মোঃ ফয়সাল আলম নিয়োগ পায়।

২০০৪ সালে কৃষি শিক্ষক মোছাঃ ফৌজিয়া আক্তার মেঘনা পদত্যাগ করেন।পরবর্তী তে সহকারী শিক্ষক (কৃষি)পদে সৈয়দ আখতারুজ্জামান (তোতা)নিয়োগ পায়।সহকারী শিক্ষক (গনিত) মোঃ আশাদুজ্জামান (রাশেদ)২০০৩ সালে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগদান করেন। পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল সন্তোষজনক।

২০০৭ সালের পর সহকারী শিক্ষক(কৃষি)সৈয়দ আখতারুজ্জান এবং সহকারী শিক্ষক (ধর্ম) মোছাঃ জাকিয়া আক্তার রুজি ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

২০১০ সালে প্রতিষ্ঠান টি এমপিও ভুক্ত হয়।ওই সালেই বিদ্যালয়টি পুনরায় এমপিও স্হগিত হয়। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোছাঃ জাকিয়া আক্তার রুজিপুনরায় প্রতিষ্ঠান টি এমপিও ভুক্তর জন্য আদালতে রিট করেন।আদালতের রায়ের প্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের মার্চ মাসের এমপিও তে রানীগঞ্জ বালিকা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (ধর্ম) মোছাঃ জাকিয়া আক্তার রুজি,সহকারী শিক্ষক (সমাজবিজ্ঞান) মোছাঃ নারর্গীস তানজিমা,অফিস সহকারী মোছাঃহাজেরা খাতুন,পিয়ন মোঃ আজাহারুল ইসলাম,আয়া মোছাঃ বিউটি বেগম বেতন উত্তোলন করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য