আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ ‘ধর্ষণের বিরুদ্ধে হোক প্রতিরোধ-চাই রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পারিবারিক গণপ্রতিরোধ আন্দোলন’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা হতে দুপুর ১২ পর্যন্ত বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, অবলম্বন, বিডিইআরএম ও জনউদ্যোগের আয়োজনে আসাদুজ্জামান স্কুলের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি আমাতুর নুর ছড়ার সভাপতিত্বে মানববন্ধন ও সমাবেশ চলাকালে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রিক্তু প্রসাদ, জনউদ্যোগের সদস্য সচিব ও অবলম্বনের নির্বাহী পরিচালক প্রবীর চক্রবর্তী, সাংবাদিক আফরোজা লুনা, মানবাধিকার কর্মী অঞ্জলী রানী দেবী, দীপ্তি রানী, বিডিইআরএম এর সভাপতি সন্তোষ বাশফোর, বাংলাদেশ রবিদাস উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি দধিয়া রবিদাস, দলিত নেতা মিলন রবিদাস প্রমুখ।

বক্তরা বলেন ধর্ষণ এমন একটা সামাজিক ব্যধি যে একদিনেই এর থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব নয়। ‘প্রতিকার’ ও ‘প্রতিরোধ’ এই দুটোই প্রয়োজন। ‘প্রতিরোধ’ গড়ে তোলার জন্য সর্ব সাধারণের মধ্যে সচেতনতা ও জনমত সৃষ্টি করতে হবে।

পাশাপাশি বিচার ব্যবস্থার প্রতি মানুষ এর আস্থা আরো বাড়াতে হবে। দ্রুত তদন্ত কাজ সমাপ্ত করতে হবে। অবশ্য সে জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই কঠোর ও দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। ধর্ষণ একটি মানবতাবিরোধী অপরাধ।

এই অপরাধে নিপীড়ককে চিহ্নিত করে পারিবারিক, সামাজিক, রাজনৈতিকভাবে বয়কট ও আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। ধর্ষণের শিকার নারীকে দায়ী করার মানষিকতা পরিহার করে তার প্রতি সংবেদনশীল হতে হবে ও তার পাশে দাঁড়াতে হবে। ‘ধর্ষণ’ এর জন্য দায়ী সকল কারণ চিহ্নিত করতে হবে এবং সমাজ থেকে সেই কারণগুলোকে বিতাড়িত করতে হবে। আসুন জনমত সৃষ্টির মাধ্যমে প্রতিরোধ গড়ে তুলি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য