প্রতিনিধি দিনাজপুর সংবাদাতাঃ গরু খামারীদের অধিক লাভের আশায় অসদুপায় অবলম্বন না করার আহবান জানিয়ে দিনাজপুরে অনুষ্ঠিত হলো ষাঁড় প্রদর্শনী ও প্রতিযোগীতা ২০১৮। ষাঁড় প্রদর্শনী ও প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠানে গরু মোটা তাজাকরনে প্রাকৃতিক ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে সুফল প্রাপ্তির বিষয়ে গরু খামারীদের সর্তক থাকার আহবান জানানো হয়।

দিনাজপুর সদর উপজেলার ৭নং উথরাইল ইউনিয়নের গোদাগাড়ি কলেজ মাঠ প্রাঙ্গনে এসিআই গোদরেজ’র আয়োজনে দিনাজপুরে প্রথমবারের মত দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হলো ষাঁড় প্রদর্শনী ও প্রতিযোগীতা ২০১৮। ইউপি চেয়ারম্যান ইমদাদ সরকারের সভাপতিত্বে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ শাহিনুর আলম,বিশেষ অতিথি ছিলেন,এডিএলও ডাঃ আশিকা আকবর,উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ কাজী মাহাবুবুর রহমান ও ভেটেনারী সার্জন এমএ জলিল।

আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন,এসিআই গোদরেজের স্থানীয় পরিবেশক মোঃ বেলাল হোসেন,গরু রিস্টপুস্টকরনের নেচারাল ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির ব্যবহার সর্ম্পকে গরু খামারীদের উদ্দেশ্যে ধারনা উপস্থাপন করে পরামর্শমুলক বক্তব্য উপস্থাপন করেন এসিআই গোদরেজের নর্থ বেঙ্গল ক্যাটেলের টিম লিডার ডাঃ সোহেল রানা। তিনি সকলকে জানান, গরু খামারীদের উৎসাহ-উদ্দীপনা জোগাতে কোম্পানীর উদ্দ্যোগে রংপুর বিভাগে ৩টি ষাঁড় প্রদর্শনী ও প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হবে,যার মধ্যে দিনাজপুরের আয়োজন হচ্ছে প্রথম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ শাহিনুর আলম বলেন,নির্বোধ অসহায় প্রানী গুলোর খাবার যেন শতভাগ ভোজালমুক্ত হয় সেদিকে প্রত্যেকের নজর রাখা জরুরী। মানুষের প্রয়োজন মেটাতে উৎপাদিত গো মাংস যেন নিরাপদ ও ভেজালমুক্ত হয় সেজন্যে সকলের সহযোগীতা প্রয়োজন। মানুষের নিরাপদ খাদ্যের জন্যে গো-খাদ্যর নিরাপদ হওয়া উচিৎ।

তিনি বিদেশী আমদানী নয়, দেশে গো-মাংসের চাহিদাপুরন ও মাংসের দাম নাগালের মধ্যে রাখতে গো-খাদ্য উৎপাদনকারী এসিআই গোদরেজের উৎপাদিত গো-খাদ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখতে সংশ্লীষ্টদের প্রতি আহবান জানান।

ষাঁড় প্রদর্শনী ও প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহনকারী গরু খামারী মোঃ আলতাফ হোসেন,মনিরুজ্জামান ও মোঃ সেলিম জানান, খামারের গরুগুলো যতেœর পাশাপাশি তারা প্রাকৃতিক খাদ্যসহ নিয়মমত এসিআই গোদরেজের উৎপাদিত মিটমোর ব্যবহারের কারনে অধিক সুফল পাচ্ছেন তারা।

ষাঁড় প্রদর্শনী পরিদর্শন শেষে আমন্ত্রিত অতিথিরা বিজয়ীদের মাঝে এলইডি টিভি,ষ্ট্যান্ড ফ্যান,এন্ড্রুয়েড মোবাইল ফোন,দিনার সেটসহ বিভিন্ন পুরস্কার বিতরন করেন। উল্লেখ্য, ষাঁড় প্রদর্শনী ও প্রতিযোগীতায় ৭নং উথরাইল ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের গরু খামারীদের প্রায় অর্ধশতাধিক ষাঁড় অংশ নেয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য