ইন্দোনেশিয়ায় ঘরে তৈরি চোলাই মদ পান করে ৫০ জনেরও বেশি লোক মৃত্যুবরণ করেছেন।

এ ঘটনায় আরো বহুল লোক অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

ওই মদ তৈরিতে মশার ওষুধসহ দুষিত বিভিন্ন উপাদান ব্যবহার করা হয়েছিল। এসব মদ তৈরির সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ রাজধানী জাকার্তা ও পার্শ্ববর্তী একটি প্রদেশ থেকে অন্তত ১২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

ওই পানীয়তে প্রাণঘাতী মেথানল উৎপন্ন হয়ে না এর উপাদানগুলোর (যেগুলোর মধ্যে পোকা তাড়ানোর জন্য পরিচিত একটি ওষুধও ছিল) বিষক্রিয়ায় ওই ব্যক্তিরা মারা গেছেন তা পরিষ্কার হওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশের মুখপাত্র ত্রুনোইউদো উইসনু আন্দিকো বলেছেন, “এটি বিভিন্ন উপদানের মিশ্রণ ছিল যা খাওয়ার উপযুক্ত ছিল না। এর উপাদানগুলো নির্দিষ্ট করার জন্য আমরা এখনও পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছি।”

এ ঘটনার পর কর্তৃপক্ষ রাস্তার পাশের দোকানগুলোতে অভিযান চালিয়ে হাজার হাজার বোতল চোলাই মদ ধ্বংস করেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

গণমাধ্যমে সম্প্রাচারিত ছবিতে বেশ কয়েকটি শহরের হাসপাতালের মর্গের সামনে প্রিয়জনের লাশের জন্য স্বজনদের অপেক্ষা করতে দেখা গেছে।

মুসলিম প্রধান ইন্দোনেশিয়ায় মদের ওপর উচ্চ কর আরোপ করা হয়েছে। এরফলে স্বল্প আয়ের মানুষেরা প্রায়ই সস্তা দরের চোলাই মদ কিনে পান করেন থাকেন।

দেশটিতে এ ধরনের মৃত্যুর ঘটনা প্রায়ই খবরের কাগজের শিরোনাম হয়। কিন্তু এবারের ঘটনায় গত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ২০১৬ সালে স্থানীয়ভাবে তৈরি মদ পান করে দেশটিতে ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য