ঘোড়াঘাট(দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের রেবেকা সুলতানা বানু আলোকিত মানুষ হিসেবে উপলেজায় খ্যাতি রয়েছে।এলাকার সকলে বানু আপা বলে ডাকত।এলাকার মানুষের দুঃখ, কষ্টের কথা শুনলেই ছুটে যেতেন।

হাত বাড়িয়ে দিতেন সাহায্যের।মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিম খানা সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আর্থিক সহযোগিতা করেছেন।আলহাজ্ব রেবেকা সুলতানা বানু ১৯৫৯ সালে উপজেলার ৩নং সিংড়া ইউনিয়নের কাশিয়াতলা শীধল গ্রামে সম্ভান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন।

পিতা মৃত দুদু মিয়া, মাতা মুত রাজিয়া খাতুন।১৯৭৫ সালে উপজেলার ২নং পালশা ইউনিয়নের বলাহার গ্রামের মৃত শাহ্ মোঃ মতিন চৌধুরীর সাথে বিয়ে হয়।নিঃসন্তান বানু আপা শুধু গরিব,দুঃখী মানুষের সেবাই নিয়োজিত আছেন।কখনো তার কাছ থেকে খালি হাতে ফিরে জাননি কোন গরীব মানুষ।সামর্থ্য অনুয়ায়ী সাহায্যে করেছেন।

তিনি একজন কবি এবং বলাহার উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষিকা। তিনি নিঃ সন্তান হয়েও অসীম মাতৃত্বের অধিকারী।তিনি সততার সাথে ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ঘোড়াঘাট উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব, ১৯৯১ সালে দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি -২.মহিলা পরিচালক,সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের গুরুত্ব পূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন।

তিনি ইউনাইটেড মুভমেন্ট হিউম্যানরাইটস থেকে” শেরে বাংলা ফজলুল হক”স্বর্ণ পদক,২০১৩ সালে দিনাজপুর জেলার সফল মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে পদক লাভ করেন।বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অবদান রাখায় সস্মানসূচক পদক পেয়েছেন তিনি। মনোরঞ্জন মোহন্ত,ঘোড়াঘাট,দিনাজপু।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য