এস আই বিজয়: তারাগঞ্জ(রংপুর)প্রতিনিধি:রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়নে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।জানা গেছে,গত বুধবার উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়নের উজিয়াল ঘাটিয়ালপাড়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে।

প্রায় তিন বছর পূর্বে নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার কুমার ডাঙ্গা গ্রামের বাবুল শেখের মেয়ে আছিয়া আক্তার বিথী (২০) এর সাথে তারাগঞ্জ উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়নের উজিয়াল ঘাটিয়াল পাড়া গ্রামের সফার উদ্দিনের ছেলে হাসিনুর রহমানের সাথে ঢাকায় প্রেমের পরিচয়ে বিবাহ হয়।

তার পর থেকে ঢাকায় দাম্পত্ব জীবন যাপন করছিল। এরই মধ্যে একটি সন্তানও হয়েছে তাদের পরিবারে।এদিকে সন্তান নিয়ে হাসিনুরের গ্রামের বাড়িতে তার স্ত্রী বসবাস করছিল।বিয়ের পর থেকেই তার শাশুড়ীর সঙ্গে সংসারে ঝগড়া বিবাদ লেগে থাকতো। এভাবেই চলতে থাকতো বিথীর উপর অমানুষিক নির্যাতন।

এরই সূত্র ধরে গত বুধবার দিনে বিথী তার সন্তানকে শাসন করায় এক পর্যায় হাসিনুরের মা পেয়ারা বেগম ও তার পরিবারের লোকজন বিথীকে মারপিঠ করে । এবিষয়ে বিথীর স্বামী হাসিনুর মুঠোফোনে বলেন,বিথী অসুস্থ ছয় মাসের অন্ত:সত্বা।আমি বর্তমান ঢাকায় একটি রড (লোহা) কোম্পানীতে চাকরীরত অবস্থায় আছি।

আমি শুনেছি আমার পরিবারের সাথে আমার স্ত্রীর ঝগড়া হয়েছে। হাসিনুরের মা পেয়ারা বেগম বলেন,আমাকে বিথী শাশুড়ী হিসেবে কোন মূল্যায়ন করতো না। প্রায় আমাকে অশলীল ভাষায় গালি গালাজ করতো। কান্নাজড়িত কন্ঠে এই প্রতিবেদককে বলেন “বাবা কাইল অয়মোক (বিথী) পিড়া দিয়া ডাঙ্গাইছে” আইজ (বৃহস্পতিবার) সকাল ব্যালা উঠি দ্যাখোং গলাত ফাঁস দিয়া মরি গেইছে।

বিথীর বাবা বাবুল শেখ অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়ে আছিয়া আক্তার বিথীকে শারিরীক নির্যাতন করে পরিকল্পিত ভাবে মেরে ফেলা হয়েছে।

এলাকাবাসির মধ্যে অন্ত:সত্বা গৃহবধুর মৃত্যুতে চাঞ্চল্যের সৃষ্ঠি হয়েছে। হাড়িয়ারকুঠি ইউপি চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ বাবুল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন আসল বিষয় প্রশাসনের সহযোগিতায় জানা যাবে।

তারাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জিন্নাত আলী বলেন, এবিষয়ে থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে এবং অন্ত:সত্বা গৃহবধুর মরাদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য