দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বাংলাদেশ বৈশিক জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব বিবেচনায় পৃথিবীর ঝুকিপূর্ণ দেশগুলির মধ্যে অন্যতম।

সরকারের গঠিত জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাষ্ট তহবিল থেকে প্রাপ্ত অর্থে বাস্তবায়িত প্রকল্পে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, শুদ্ধাচার এবং ক্ষতিগ্রস্ত জনগণের অংশগ্রহণ ও মতামত নিশ্চিত করার লক্ষে সচেতন নাগরিক কমিটি(সনাক),দিনাজপুর এই গণশুনানীর আয়োজন করে।

৫ এপ্রিল, ২০১৮ সকাল ১১.৩০টায় জলবায়ু অর্থায়নে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বাস্তবায়িত কার্যক্রম এলাকা চিরিরবন্দর উপজেলার ৯নং ভিয়াইল ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে এই গণশুনানী অনুষ্ঠিত হয়।

সনাক জলবায়ু অর্থায়ন উপ-কমিটি’র আহ্বায়ক মোঃ মোজাফফর আলী মিলন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সনাক সদস্য অধ্যক্ষ হাজেরা হাসান।

জলবায়ু অর্থায়নে বাস্তবায়িত সার্বিক কার্যক্রম ও বাজেটের সঠিক ব্যবহার, জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব এবং সমাপ্তকৃত কাজের মান ও পরবর্তীতে তা রক্ষণাবেক্ষণ বিষয়ে আলোচনা হয়। তিন (৩)কোটি টাকা ব্যায়ে কাকঁরা নদীর ডানতীর ৩৮৫ মিটার রক্ষা প্রকল্পের কাজের বিষয়ে এলাকার সুবিধাভোগীরা মূল্যবান মতামত প্রদান করেন।

প্রকল্প এলাকার লোকজন জানান এই তীর রক্ষা করা না হলে বন্যায় এলাকার সকল বসতবাড়ী নদীতে বিলীন হয়ে যেত। নদীতীরবর্তী এলাকার লোকজন নদী তীরের আরও কিছু ভাঙ্গন এলাকা রক্ষণাবেক্ষনের জন্য সরকারি বরাদ্দ পাওয়ার বিষয়েও পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীর নিকট জানতে চান।

নির্বাহী প্রকৌশলী জানান সরকারি নিয়ম অনুযায়ী বিসিসিটিএফ এর জলবায়ু অর্থায়নের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য এলাকার জনগনের আরও সহযোগীতা প্রয়োজন। আপনাদের চাহিদা অনুযায়ী পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রকল্প প্রস্তাব জমা দিবে, সরকারের পক্ষ থেকে তা অনুমোদিত হলে নদীর পূর্বের এলাকার কাজটুকু করা সম্ভব হবে। তিনি এলাকার জনগনের সকল প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন এবং সমাপ্তকৃত প্রকল্পে কোন ধরনের সমস্যা দেখা দিলে তার অফিস তাৎক্ষনিক সেই সমস্যার সমাধান করে দিবে বলে তিনি সভাকে আস্বস্ত করেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে সুবিধাভোগীদের আরও জানানো হয়, প্রকল্পের উপকারভোগী আপনারা প্রকল্পের কাজ রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব এলাকাবাসীর। বিশেষ করে ইউনিয়ন সমাজকল্যান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির। তছাড়াও এলাকায় সনাক কৃর্তক ৭ সদস্য বিশিষ্ট নাগরিক কমিটি গঠন করা আছে।

তারা নিয়মিত যোগাযোগ রাখবে বলে আমাদের বিশ^াস। এই প্রথম এধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন এবং জনগনের কথা বলার সুযোগ করে দেয়ার জন্য বাপাউবো ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে সনাক-টিআইবিকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

অনুষ্ঠানটিতে পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চেয়ারম্যান নরেন্দ্র নাথ রায়, পরিষদ সচিব মোঃ ফিরোজুল ইসলাম ইউপি: সদস্যবৃন্দ, পানি উন্নয়ন বোর্ডে উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ মনছুর আহমেদ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ সিদ্দিকুর রহমান ও অন্যান্য প্রকৌশলীবৃন্দ এবং স্বজন সদস্য ছগির আহমেদ কমল, সনাকে‘র ইয়েস সদস্যরা ছাড়াও স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য