আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ বিদেশে পাঠানোর কথা বলে প্রতারক আদম ব্যাপারী শহিদুল ইসলাম গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার কামারপাড়া ইউনিয়নের কেশালিডাঙ্গার ভুটটু মিয়া ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কিশামত ধোপাডাঙ্গার আবু হানিফ ও উত্তর ধোপাডাঙ্গা গ্রামের মুকুল মিয়ার ১৭ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে।

বিদেশ যেতে না পেরে টাকা ফেরত চাওয়ায় প্রতারিত ওই তিন ব্যক্তি নারী নির্যাতনসহ মিথ্যা ও হয়রানীমূলক মামলার শিকার হয়ে এখন দুর্বিষহ জীবন যাপন করছে। বুধবার গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবরে প্রতিকারসহ অবিলম্বে ওই প্রতারককে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে ভুক্তভোগী ভুটটু মিয়া ও আবু হানিফ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, সাদুল্যাপুরের কামারপাড়ার কেশালিডাঙ্গা গ্রামের প্রতারক আদম ব্যাপারী শহিদুল ইসলাম ইতালিতে পাঠানোর কথা বলে ২০১৭ সালের ৫ জানুয়ারি ভুটটু মিয়ার কাছ থেকে ৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা গ্রহণ করে।

এছাড়া সে আবু হানিফকে সৌদিআরবে পাঠানোর কথা বলে ৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও একই উপজেলার উত্তর ধোপাডাঙ্গা গ্রামের মুকুল মিয়াকে ইরাক পাঠানোর কথা বলে ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকা গ্রহণ করে। কিন্তু সে তাদের তিনজনকে উল্লেখিত দেশে পাঠাতে ব্যর্থ হয়।

ফলে তারা শহিদুলের কাছে টাকা ফেরত পেতে চাপ সৃষ্টি করলে সে তিনজনের অনুকুলেই অগ্রণী ব্যাংক, কামারপাড়া শাখায় তিনজনের নামে পৃথক তিনটি চেক প্রদান করে। কিন্তু ব্যাংকে চেক জমা দিয়ে ওই একাউন্টে পর্যাপ্ত ফান্ড না থাকায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চেক ডিজঅর্নার করে দেয়।

এমতাবস্থায় উক্ত তিন ব্যক্তি গাইবান্ধা সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার আমলী আদালতে প্রতারক শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে পৃথক প্রতারণা মামলা দায়ের করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতারক শহিদুল প্রথমে মামলা তুলে নেয়ার জন্য ভুটটুসহ তিনজনকেই হুমকি প্রদান করতে থাকে এবং একপর্যায়ে সন্ত্রাসীদের দ্বারা ২৬ ফেব্র“য়ারি ভুটটুকে বেধরক মারপিট করে। এ ঘটনায় ভুটটু মিয়া ৪ মার্চ সদর উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করে।

এতে প্রতারক শহিদুল আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে এবং প্রতিশোধ গ্রহণ করতে তার স্বামী পরিত্যক্তা বড় মেয়ে রেশমা আকতারকে বাদি করে পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক চলতি বছরের ১ এপ্রিল ভুটটু মিয়া ও হানিফ মিয়ার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মিথ্যা ও হয়রানীমূলক মামলা দায়ের করে। এছাড়াও শহিদুল সাদুল্যাপুর থানায় ভুটটু মিয়ার নামে একটি মিথ্যা বানোয়াট মামলা দায়ের করে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য