জাতিসংঘের এক শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছেন সংস্থাটির এক নারী কর্মী। মার্টিন ব্রস্ট্রম নামে ওই নারী দাবি করেন, তার অভিযোগ খতিয়ে দেখতে ব্যর্থ হয়েছে জাতিসংঘ। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এর এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সিএনএন এর সঙ্গে বিশেষ এক সাক্ষাতকারে জাতিসংঘে মহাসচিবের সহকারী লুইস লোরেজের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন মার্টিন। ইউএনএইডএস এর এই পলিসি পরামর্শক দাবি করেন, লুইস তাকে জোর করে হোটেল রুমে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল। ২০১৫ সালে এক সম্মেলন চলাকালে এই ঘটনা ঘটে।

মার্টিন বলেন, ‘আমি তার সঙ্গে পেরে উঠছিলাম না। আমি চেষ্টা করছিলাম যেন আমাকে লিফট থেকে নামতে না হয়। তিনি আরও বলেন, ‘আমার সঙ্গে যা হয়েছে এবং সেটা যে ভুলভাবে দেখা হয়েছে বা ব্যর্থ হয়েছে। তা যেন অন্য কোনও নারীর সঙ্গে না হয়।’

বিষয়টি নিয়ে ১৪ মাসের অনুসন্ধান চালায় জাতিসংঘ। পুরো সময়টাতে লোরেস সহায়তা করেছেন। তবে তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয় মার্টিনের দাবি ভিত্তিহীন। এই ফলাফলের নিন্দা জানিয়ে মার্টিন বলেন, তদন্তকার্য ত্রুটিপূর্ণ ছিল।

চলতি সপ্তাহেই্ জাতিসংঘ ছেড়ে দেওয়ার কথা ইউএনএইডস এর উপ-নির্বাহী পরিচালক লোরেসের। সংস্থাটির এক মুখপাত্র সিএনএনকে বলেন, মার্টিনের অভিযোগ নিয়ে নিয়ম মেনেই তদন্ত করা হয়েছে। আর মার্টিন চাইলে ফলাফলের বিরুদ্ধে আপিলও করতে পারেন।

এর আগেও লোরেসের বিরুদ্ধে তিনজন নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছিলেন। ২০১৪ সালে মালায়াহ হারপার নামে এক নারী একই ধরনের অভিযোগ তুলেছিলেন। তারও দাবি ছিলো এক হোটেল রুমে নিয়ে যাওয়ার জন্য জোর করেছিলেন লোরেজ। কয়েক বছর আগে আরেক নারীও এমন অভিযোগ তুলেছেন।

ইউএনএইডস এর প্রধান মাইকেল সিদিবের কাছের মানুষজন জানিয়েছেন তারা লোরেজকে গত তিন বছর ধরে এই বিষয়ে সতর্ক করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য