আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ পৌরশহরের মদিনা সিডের একটি গোডাউনে মজুদ থাকা প্রায় ১ হাজার বস্তা ভারতীয় বিভিন্ন কোম্পানীর মেয়াদ উত্তীর্ণ পাট বীজ জব্দ করেছে পুলিশ ও বিজিবি। এসময় মদিনা সিডসের স্বতাধিকারী আব্দুল মমিনের ভাই আবদুল মুকুলকে আটক করা হয়। জব্দ করা ১ হাজার বস্তায় (প্রতি বস্তা ৫০ কেজী ওজন) পাট বীজের আনুমানিক বাজার মুল্যে প্রায় এক কোটি টাকা।

ভারতীয় বিভিন্ন কোম্পানীর মজুদকৃত পাট বীজের আমদানীর বৈধ কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেনি ওই ব্যবসায়ী। শনিবার রাত সাড়ে ১০ টায় গোবিন্দগঞ্জ পৌরশহরের গরুহাটি সংলগ্ন মদিনা সিডের গোডাউন থেকে পাট বীজের বস্তাগুলো জব্দ করা হয়।

গোপন খবরে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শীলাব্রত কর্মকারের নেতৃত্বে বিজিবি ২৯ ব্যাটালিয়ান দিনাজপুর ক্যাম্পের অধিনায়ক রেজা ও গোবিন্দগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মো. মজিবুর রহমান পিপিএম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে এ অভিযান পরিচালনা করেন।

বিজিবি ২৯ ব্যাটালিয়ান দিনাজপুর ক্যাম্পের অধিনায়ক রেজা জানান, চলতি পাট বপন মৌসুমে খুচরা ও পাইকারী বিক্রির উদ্দেশ্যে মদিনা সিডের মালিক আব্দুল মমিন মন্ডল মেয়াদ উত্তীর্ণ ভারতীয় বিভিন্ন কোম্পানীর সিল যুক্ত প্যাকেট করা পাট বীজ গোডাউনে মজুদ করেন। এসব মেয়াদ উত্তীর্ণ ও নি¤œমানের বীজ ক্রয় করে জমিতে বপনের পর প্রতারণা ও ক্ষতির শিকার হতে হয় কৃষকদের।

গোপন খবরে অভিযান চালিয়ে গোডাউনে ৫০ কেজি ওজনে প্রায় ১ হাজার বস্তা মেয়াদ উত্তীর্ণ পাট বীজ জব্দ করা হয়। জব্দ করা এসব পাটের বীজ ভারতীয় বিভিন্ন কোম্পানীর। তাছাড়া এসব পাট বীজ ক্রয়ের বৈধ্য ও আমদানীর কোন কাগজপত্র দেখাতে না পারায় মদিনা সিডের স্বত্বাধিকারী আব্দুল মমিনের ভাই আব্দুল মুকুলকে আটক করা হয়েছে। জব্দ করা ১ হাজার বস্তা পাট বীজের আনুমানিক বাজার মুল্যে প্রায় ১ কোটি টাকা।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শীলাব্রত কর্মকার জানান, পাট বীজ উদ্ধারের ঘটনায় আটক মুকুল ও তার ভাই মমিনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। এরসাথে আরও কারা জড়িত আছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য