ভারতের উত্তর প্রদেশে বেসরকারি ব্যাংকের আস্ত একটি ভুয়া শাখা খুলে সাধারণ জনগণের কাছ লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে পুলিশ এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে।

গ্রেপ্তার আফাক আহমেদ নিজেকে কর্নাটক ব্যাংকের বালিয়া শাখার ম্যানেজার হিসেবে পরিচয় দিতেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

যদিও এলাকাবাসী তাকে চিনত ‘ভিনোদ কুমার কাম্বালি’ নামে; ভুয়া নামেই জাতীয় পরিচয়পত্রও ছিল বাদায়ু জেলার এ বাসিন্দার।

বিবিসি বলছে, কর্নাটক ব্যাংকের কর্মকর্তারা বালিয়ায় একটি ভুয়া শাখার কথা জানতে পেরে দিল্লি থেকে ছুটে এসে পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে অভিযান চালানোর পর আফাকের জালিয়াতি উন্মোচিত হয়।

মাসখানেক আগে ‘ভিনোদ কাম্বালি’ পরিচয়ে ব্যাংকের এ ভুয়া শাখাটি চালু করেন তিনি। মাসে পাঁচ হাজার রুপি বেতনে স্থানীয় কয়েকজনকে চাকরিও দেয়া হয়; যদিও তারা এই জালিয়াতির বিষয়ে জানতেন না বলে দাবি করছেন।

ভুয়া ওই শাখায় অন্তত ১৫ জন স্থায়ী ও সঞ্চয়ী আমানত জমা করেছিলেন বলে জব্দ হওয়া নিবন্ধন বইতে প্রমাণ পাওয়া গেছে।

“আমরা এক লাখ ৩৭ হাজার রুপি, তিনটি কম্পিউটার, বেশকিছু যন্ত্রপাতি, নথি ও একটি নিবন্ধন বই পেয়েছি, যাতে ১৫ জন এ শাখায় অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন বলে লেখা আছে,” জানিয়েছে বালিয়া পুলিশ।

জালিয়াতির এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। পুলিশ প্রতারক আফাককে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছে বলে বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য