মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও থেকেঃ ঠাকুরগাঁওয়ে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । বৃহস্পতিবার (২৯ মার্চ) বিকেল ৩টায় ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ প্রতিশ্রুতি দেন ।

এছাড়া স্পেশাল ইকনোমিক জোন, আন্তঃনগর ট্রেন, আইটি পার্ক, ফুড প্রসেসিং সেন্টাসহ আরও বেশ কিছু উন্নয়নের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলেছেন, যতদূরেই থাকি আমি সব সময় আপনাদের সঙ্গেই ছিলাম, সঙ্গে আছি এবং সঙ্গে থাকবো। আমি আপনাদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। আপনাদের ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়া জন্য স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠা করেছি। আমি ক্ষমতায় এসে মানুষের উন্নয়নের কথা চিন্তা করি। দেশের প্রধান হিসেবে নিজেকে সেবক মনে করি। আমার ওপর ১৬ কোটি মানুষের দায়িত্ব রয়েছে। আমি সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করার চেষ্টা করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি, তারা তো লুটপাটেই ব্যস্ত, দুর্নীতিতেই ব্যস্ত। প্রায় ৯৮০ কোটি টাকা তার ছেলেরা ব্যাংক থেকে লুট করে নিয়ে গেছে। একটা টাকাও ফেরত দেয় নাই।

শেখ হাসিনা বলেন, এতিমদের জন্য টাকা এসেছে, একটি টাকাও এতিমদের দেয় নাই। নিজেরা মেরে খেয়েছে। মামলা দিয়েছে তত্ত্বাবধায়ক সরকার। সেই মামলায় আদালত শাস্তি দিয়েছেন। এতিমের টাকা মেরে খাওয়ার বিষয়ে কোরআনেও বলা আছে।

জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যতদূরেই থাকি আমি সব সময় আপনাদের সঙ্গেই ছিলাম, সঙ্গে আছি এবং সঙ্গে থাকবো। আমি আপনাদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সরকার ক্ষমতায় এলেই দেশের উন্নয়ন হয়। আমরা উন্নয়ন করি আর বিএনপি লুটপাট করে। আমরা বিমানবন্দর চালু করি তারা বন্ধ করে। এভাবে একের পর এক উন্নয়ন কর্মকান্ডে বাধাগ্রস্থ করে দেশের উন্নয়ন ধ্বংস করছে বিএনপি।

তিনি বলেন, এখন আন্দোলনের হুমকি দিচ্ছে। যে এতিমের টাকা চুরি করে তার জন্য আন্দোলন কীসের?

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী বলেন? গলা ফুলিয়ে কথা বলতে বলতে গলাও খারাপ হয়ে যায়। গলার চিকিৎসা করাতে হয়। সারাদিন মিথ্যা কথা বললে আল্লাহ নারাজ হয়। মির্জা ফখরুল ইসলাম সারাদিন মিথ্যা কথা বলেন।

তিনি বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম বিমানমন্ত্রী ছিলেন, সৈয়দপুর বিমানবন্দর বন্ধ করে দিয়েছিল। আমরা ক্ষমতায় এসে সেই বিমানবন্দর চালু করেছি। এরা ধ্বংস করতে পারে, সৃষ্টি করতে জানে না। লুটপাট করতে জানে, উন্নয়ন দিতে জানে না।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, বিএনপির এটাই কাজ, মানুষকে হত্যা করা। মানুষ হত্যা করে তারা দেশকে কোথায় নিয়ে যেতে চাইছিল? আমি ধন্যবাদ জানাই বাংলার মানুষকে।

বিএনপি উন্নয়ন না করতে পারার কারণ হিসেবে শেখ হাসিনা বলেন, কারণ তার সঙ্গে যুদ্ধাপরাধী, যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায় নাই, বাংলাদেশের মানুষের উন্নয়ন চায় না। বাংলাদেশের মানুষকে দরিদ্র করে রাখতে চেয়েছিল। তাদের হাতে বাংলাদেশের উন্নয়ন হতে পারে না।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় এসে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করে দিলো। মানুষ চিকিৎসা পায়, বিনা পয়সায় ওষুধ পায় সেটা তাদের পছন্দ নয়। আমি ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর সেগুলো পুনরায় চালু করি। আজকে নিরাপদ চিকিৎসা সেবা সহ সকল সুবিধা পাচ্ছে সাধারণ মানুষ।

বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলাম দিনরাত মিথ্যা কথা বলতে বলতে গলা খারাপ করে ফেলেছে। সে ছিল বিমান প্রতিমন্ত্রী। অনেক বিমান বন্দর বন্ধ ও লুটপাট করে সব কিছু ধ্বংস করে ফেলেছিলেন তিনি। আমরা ক্ষমতায় এসে অনেক বিমান চালু করেছি। আগামীতে আরো বিমানকে উন্নত করবো।

ঠাকুরগাঁওবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমার কাছে দাবি করার প্রয়োজন নাই। এই বাংলাদেশ আমি চিনি। আমি সমগ্র বাংলাদেশ সফর করেছি। আমি জানি কোথায় মানুষের কী লাগবে।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দবিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে জনসভায় আরও বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ এম মাহমুদ আলী, দলের যুগ্ম সাধারণ মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল, ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামীলীগের

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য