আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে মেয়ের জামাতা ছাইফুল ইসলামের ছুরিকাঘাতে শ্বাশুড়ি খায়রুন্নেছা (৫৫) খুন হয়েছে।

বুধবার রাত সোয়া নয়টার দিকে উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের মরুয়াদহ গওামে এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত খায়রুন্নেছা বেওয়া ওই গ্রামের মৃত আব্দুস ছামাদ মিয়ার স্ত্রী।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, খায়রুন্নেছার নেছার মেয়ে শাহানা আকতারের সঙ্গে গাইবান্ধা সদর উপজেলার কুপতলা গ্রামের আব্দুল জলিল মিয়ার ছেলে ছাইফুল ইসলামের ১২ বছর আগের বিয়ে হয়।

তাদের পারিবারিক কলহের জের ধরে বছর খানেক আগে শাহানাকে তালাক দেয় ছাইফুল। এরপরও শ্বশুরবাড়ির লোকের সাথে মোবাইল ফোনে কথা হতো।

ছাাইফুল তার তালাক প্রাপ্ত স্ত্রীকে বিয়ে করার জন্য আবারো চেষ্ঠা চালায়। তবে কিছুতেই রাজী নয় শাহানা ও তার মা-ভাই। এরই জের ধরে ওই রাতে ছাইফুল শ্বশুর বাড়ীতে এসে কৌশলে শ্বাশুড়িকে ঘর থেকে ডেকে বের করে।

পরে বাড়ির পাশে দাঁড়িয়ে কথা বলার এক পর্যায়ে পাশের রাস্তার ফাঁকা জায়গায় ক্ষিপ্ত হয়ে শ্বাশুড়ি খায়রুন্নেছার গর্দানের নিচে ছুরিকাঘাত করে ছাইফুল।

এ সময় খায়রুন্নেছার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে পালিয়ে যায় ছাইফুল। পরে খায়রুন্নেছাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সাদুল্লাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ বোরহান উদ্দিন জানান, নিহতের লাশ আজ বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য