দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলার অধিকাংশই আলু চাষীরা এবার আলু বিক্রি নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন। বাজারে আলুর দাম না থাকায় আলু চাষীরা মাঠ থেকে ফসল উত্তোলন করলেও ক্রেতার অভাবে আলু বস্তা বন্দি করে রাস্তার উপর দিনের পর দিন রেখেও আলু বিক্রি করতে না পারায় চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছেন। গেনোলা হাইব্রিড জাতের আলু বিঘা প্রতি যে খরচ হয়েছে তার দাম ঠিকমত পাচ্ছে না কৃষকরা।

বোচাগঞ্জ উপজেলার ২নং ইশানিয়া ইউনিয়নের তেরেঙ্গী বাজার এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, রাস্তার দুই ধারে কয়েকশ বস্তা আলু সাজিয়ে রাখা হয়েছে বিক্রির জন্য কিন্তুু ক্রেতা না থাকায় তাদের আলূ বিক্রি হচ্ছে না। অনেকেরই আলু বস্তার মধ্যে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

এর মধ্যে কেউ বস্তার আলু বাছাই করে সাধারন মানুষের কাছে কেজি প্রতি ৫ থেকে ৬টাকায় বিক্রি করছে। এতে তাদের আলু কিছুটা বিক্রি হলেও নায্য দাম পাচ্ছেন না।

কৃষক গোপাল চন্দ্র জানান, সে এবার এক একর জমিতে হাইব্রিড গেনোলা আলু করেছে তাতে যে ফলন এসেছে বাজারে তা বিক্রি করে খরচের টাকা উঠেনি। এইক অবস্থা এই এলাকার অধিকাংশ আলু চাষীর। তারা আলু নিয়ে ক্রেতার জন্য অপেক্ষা করলেও নায্য মুল্য পাচ্ছে না।

ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা আলু ক্রেতারা আলু নিতে আসলেও পরিবহন ভাড়া বেশি হওয়ায় তারাও আলুর কিনছে কম দামে। ক্রেতার চেয়ে বিক্রেতা বেশি হওয়ায় সুযোগ নিচ্ছে ক্রেতারা।

আলুর মাঠ থেকে বাছাই করা আলু কেজি প্রতি ৬ থেকে ৭ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। এবার আলুর দাম তেমন ভাল না থাকায় চরম হতাশ গ্রস্থ হয়েছেন এই এলাকার আলু চাষীরা। নায্য মুল্য না পাওয়ায় আগামীতে আলু আবাদের প্রতি তারা উৎসাহ হারিয়ে ফেলেছেন। আলুর বাজার দর নিশ্চিত করতে তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য