ডোকলাম নিয়ে ফের গলা চড়ালো চীন। নয়াদিল্লির দিকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বলেছে, গত বছর ডোকলাম নিয়ে যে ঘটনা ঘটেছে তা থেকে ভারতের শিক্ষা নেওয়া উচিত।

এমনিতেই বিভিন্ন ইস্যুতে দুই দেশের মধ্যে চাপানউতোর চরমে। তার উপর ডোকলাম নিয়ে চীনের মন্তব্য যে নতুন করে দিল্লির ক্ষোভ বাড়াবে তাতে সন্দেহ নেই।

সম্প্রতি সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট নামে হংকংয়ের একটি সংবাদপত্রে সাক্ষাত্কার দিতে গিয়ে ডোকলাম কাণ্ডের জন্য চীনকেই দায়ী করেন সেদেশে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত গৌতম বামবাওয়ালে।

তার দাবি, ভারত আগ বাড়িয়ে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। বরং চীনের সেনাবাহিনী ডোকলামের স্থিতাবস্থা পাল্টানোর চেষ্টা করায় ভারত পরিবর্তিত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়েছিল। এতেই ফুঁসে উঠেছে চীন।

সোমবার চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনিং জানিয়ে দেন, ডোকলাম তাদের এলাকা। সেখানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অধিকার তাদের রয়েছে।

অনেকেরই ধারণা, ডোকলাম নিয়ে চীন নতুন করে দাবি জানানোয় অশান্তির আশংকা ফের প্রবল হচ্ছে। এমনিতে ডোকলাম মালভূমি ছোট্ট এক চিলতে এলাকা।

ভারতের মিত্র দেশ ভুটানের দাবি, ডোকলাম তাদের। কিন্তু কৌশলগত কারণে এর অবস্থান এতটাই গুরুত্বপূর্ণ যে, চীন এই এলাকা গিলে খাওয়ার চেষ্টা করেছিল বলে অভিযোগ।

গত বছরের জুনে ডোকলামের মাটিতে চীন রাস্তা তৈরির চেষ্টা করলে বাধা দেয় ভারত। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য