জম্মু-কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে প্রতিবাদী জনতার সংঘর্ষে চার বেসামরিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। আজ (মঙ্গলবার) বারামুল্লা জেলার সোপোরে যৌথবাহিনী তল্লাশি অভিযান চালানোর সময় স্থানীয় জনতা বাধা দিলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

আজ বারথ এলাকায় গেরিলারা লুকিয়ে আছে গোপনসূত্রে এমন খবর পাওয়ার পরে সেনাবাহিনীর ২২ রাষ্ট্রীয় রাইফেলস, জম্মু-কাশ্মির পুলিশের স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ ও আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ যৌথভাবে ওই এলাকায় ঘিরে ফেলে তল্লাশি চালায়।

নিরাপত্তা বাহিনী স্থানীয় দু’জনকে আটক করলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। এসময় প্রতিবাদী তরুণরা সড়কে নেমে নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপ করে। নিরাপত্তা বাহিনী পাল্টা জবাবে কাঁদানে গ্যাসের সেল নিক্ষেপ করে এবং পেলেট গানের ছররা গুলি চালালে ৪ প্রতিবাদী তরুণ আহত হয়।

পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ওই এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে, ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।

এদিকে, যৌথ প্রতিরোধ নেতৃত্বের পক্ষ থেকে গতকাল (সোমবার) এক বিবৃতিতে জম্মু-কাশ্মিরের রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।বিবৃতিতে সরকার ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলা হয়েছে মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসিয়ে লোকেদের গ্রেফতার করে বিভিন্ন কারাগারে রাখা হচ্ছে এবং যুবকদের হয়রানি করা হচ্ছে।

এরকম অগণতান্ত্রিক ও অমানবিক পরিস্থিতি বেশিদিন চলতে পারে না। যৌথ প্রতিরোধ নেতৃত্বের অভিযোগ, বিশ্ব সম্প্রদায়ের নীরবতার কারণে, ভারত সরকার ও তার প্রতিনিধিরা কাশ্মিরে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। কাশ্মির সমস্যার সমাধান সেনাবাহিনী ও অস্ত্রের মাধ্যমে কখনো হতে পারে না। এরফলে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি বেশি হবে বলেও যৌথ প্রতিরোধ নেতৃত্ব এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য