ক’দিন ধরেই গুঞ্জন ছিল গোপনে চীন সফর করছেন কিম জং উন। শেষ পর্যন্ত এই সফরের কথা স্বীকার করেছে দু’দেশের সূত্রগুলো।

২০১১ সালে দায়িত্ব গ্রহণের পর এটিই কিমের প্রথম বিদেশ সফর। সবাই সদিচ্ছা নিয়ে আসলে পরমাণু কর্মসূচি পরিত্যাগের ঘোষণাও দেন উত্তর কোরীয় নেতা।

কিম জং উনের সফরকালে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিংয়ের সঙ্গে সফল আলোচনা করেছেন। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম সিনহুয়া এই তথ্য জানিয়েছে। উত্তর কোরিয়ার প্রধান অর্থনৈতিক অংশীদার চীন।

ধারণা করা হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্ভাব্য বৈঠকের আগে করণীয় নির্ধারণে কিম এই সফর করলেন। আগামী এপ্রিলে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন ও মে’তে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে কিমের।

চীন সফরে উত্তর কোরীয় নেতা পরমাণু কর্মসূচি শর্ত সাপেক্ষে ত্যাগ করতে রাজি হয়েছেন বলেও সিনহুয়ার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

কিমকে উদ্বৃত করে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, কোরিয়ান উপদ্বীপকে পরমাণুমুক্ত রাখার বিষয়টি সমাধান হয়ে যাবে, যদি যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া সদিচ্ছা নিয়ে সাড়া দেয় এবং শান্তি ও স্থিতিশীল পরিবেশ তৈরিতে অঙ্গীকারাবদ্ধ হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য