উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠকের সম্ভাবনার মধ্যেই চলতি সপ্তাহে কিম জং উন ‘চীন সফর’ করছেন বলে বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম দাবি করেছে।

সোমবার তিনটি অজ্ঞাত সূত্রের বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ প্রথম বিদেশ সফরে কিম বেইজিংয়ে অবস্থান করছেন বলে জানায়। খবর সত্যি হলে ২০১১ সালে দায়িত্ব নেওয়ার পর এবারই প্রথম দেশের বাইরে গেলেন উত্তর কোরিয়ার এ শীর্ষ নেতা।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকের আগে কিমের এ সফরের সংবাদকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছে আন্তর্জাতিক মহল; দক্ষিণ কোরিয়াও এ বিষয়ে ‘গভীর নজর’ রাখার কথা জানিয়েছে বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

“সব সম্ভাবনার পথ খোলা রেখেই প্রেসিডেন্সিয়াল ব্লু হাউস বেইজিংয়ে কী ঘটছে, সেদিকে গভীর নজর রাখছে,” বলেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দক্ষিণ কোরিয়ার এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে সম্ভাব্য বৈঠকের আগে চীনের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতিকে ‘ইতিবাচক’ হিসেবেও দেখছেন তিনি। এপ্রিলের শেষে ও মে মাসে দুই কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে ওই বৈঠক আয়োজনেচেষ্টা চলছে বলে এর আগে সিউল ও ওয়াশিংটনের বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছিল।

মঙ্গলবার সকালে রয়টার্সের এক প্রতিনিধি বেইজিংয়ের রাষ্ট্রীয় অতিথিভবন দিয়াওয়ুতাই হাউস থেকে একটি গাড়িবহরকে বেরিয়ে উত্তরের পথে যেতে দেখেছেন। চীন সফরে আসা বিভিন্ন দেশের শীর্ষ কর্মকর্তারাই সাধারণত এ অতিথিভবনে থাকেন।

মঙ্গলবার সকালে বের হওয়া গাড়িটিতে কারা ছিলেন তা জানাতে পারেনি রয়টার্স। বহরের গন্তব্যও জানা যায়নি বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থাটি।

বেশ কয়েকটি কূটনৈতিক সূত্রও ‘সম্ভবত কিম চীনে অবস্থান করছেন’ বললেও এ ব্যাপারে নিশ্চিত করতে পারেনি।

চীনের নেতৃত্বঘনিষ্ঠ কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, তাদের ধারণা কিমের বোন কিম ইয়ো জং এখন বেইজিংয়ে অবস্থান করছেন।

গত মাসে শীতকালীন অলিম্পিকে দক্ষিণ কোরিয়ার পিয়ংচ্যাং গিয়েছিলেন জং, তার সফরের সূত্র ধরেই পরে দুই কোরিয়ার শীর্ষ কর্মকর্তাদের আলোচনার পথ খোলে।

বেইজিংয়ের উত্তর কোরিয়া সংশ্লিষ্ট এক সূত্রের বরাত দিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার বার্তা সংস্থা নিউসিস কিমের বোন জং এবং উত্তরের আলঙ্কারিক রাষ্ট্রপ্রধান কিম ইয়ং ন্যামের চীন সফরের কথা জানিয়েছে। ফেব্রুয়ারিতে শীতকালীন অলিম্পিক চলার সময় এ দুজন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইনের অফিসে গিয়ে তার সঙ্গে বৈঠকও করেছিলেন।

সোমবার জাপানি সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে পিয়ংইয়ংয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের ট্রেনে করে বেইজিংয়ে আসার কথা বলা হয়েছে। তবে তারা ওই কর্মকর্তাদের নামের বিষয়ে কিছু জানাতে পারেনি।

ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনেও কিমের সফরের বিস্তারিত উদ্দেশ্য, তিনি কোথায় কোথায় যাবেন তা বলা হয়নি।

দক্ষিণ কোরিয়ার ব্লু হাউসের ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, পিয়ংইয়ং থেকে বেইজিংয়ে ট্রেন যাওয়াসহ উত্তর কোরিয়ার এ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পদক্ষেপের বিষয়ে সিউলের নজর আছে। কিম কিংবা উত্তরের অন্য কোনো উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা চীনসফর করছেন কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত করতে পারেননি তিনি।

কঠোর গোপনীয়তা রক্ষা করে চলা, আন্তর্জাতিক মহল থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন উত্তর কোরিয়ার প্রধান মিত্র চীন; দেশটি পিয়ংইয়ংয়ের সবচেয়ে বড় বাণিজ্য অংশীদারও।

চীন উত্তর কোরিয়ার কোনো উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার সফরের কথা নিশ্চিত করেনি; তবে তারা বেইজিংয়ে কিমের অবস্থান সংক্রান্ত গুঞ্জনে পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞাও আরোপ করেনি।

বাইদু নিউজ সার্চে তাইওয়ানের এক পত্রিকার চীনা সংস্করণের খবরে সূত্র ছাড়াই কিমের গোপন বেইজং সফরের দাবি করা হয়েছে। চীনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতেও উত্তরের শীর্ষ নেতার চীন সফর নিয়ে গুঞ্জন চলছে; কেউ কেউডেনডংয়ে থাকা পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে কিমের সফরের কথা পোস্ট করছেন। চীনের এ সীমান্ত শহরকেই দুই দেশের মধ্যে ট্রেন যোগাযোগের প্রধান পথ বলছে রয়টার্স।

আগামী মাসের শেষে কিমের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার শীর্ষ কর্মকর্তাদের বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে; মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের সঙ্গেও বৈঠকের প্রস্তুতি চলছে, যেখানে ট্রাম্পের সঙ্গেও উত্তরের শীর্ষ নেতার দেখা হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

“সত্যিটা হচ্ছে, যে শীর্ষ সম্মেলন হতে যাচ্ছে, তা আমাদের প্রত্যাশারও বাইরে। এই মুহুর্তে কোরীয় উপদ্বীপের পরিস্থিতি দ্রুত বদলাচ্ছে এবং এর সবকিছুরই প্রতিক্রিয়া দেখানোর চিন্তা করা অযৌক্তিক,” বলেছেন ব্লু হাউসের ওই কর্মকর্তা।

কিম জং উনের বাবা কিম জং ইল ২০০০ সালের জুনে দুই কোরিয়ার বৈঠকে আগে চীন সফরে গিয়ে দেশটির তখনকার প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন।

প্রধান মিত্র দেশ চীনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের বিষয়ে বার্তা দিতেই ইল সেবার বেইজিং সফর করেছিলেন বলে ধারণা পর্যবেক্ষকদের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য