ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে রাম নবমীর মিছিলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় তিন জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের রাম নবমী উৎসবের দিন দেশীয় ঐতিহ্যবাহী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে শোভাযাত্রা করার ঘোষণা দিয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) পশ্চিমবঙ্গ শাখা।

রোববার উৎসব পালনের সময় ও পরে রাজ্যের বর্ধমান জেলার রানিগঞ্জে, উত্তর ২৪ পরগনার কাঁকিনাড়ায়, পুরুলিয়া ও মুর্শিদাবাদে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

সোমবার রামনবমীর মিছিলকে কেন্দ্র করে রানিগঞ্জে সংঘর্ষে এক যুবক নিহত হন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে বোমার আঘাতে গুরুতর আহত হন পুলিশের ডিসি অরিন্দম দত্ত চৌধুরি। পাশাপাশি পুলিশের এসিপি অজয় চট্টোপাধ্যায় ও রানিগঞ্জ থানার ওসি প্রমিত গঙ্গোপাধ্যায়ও আহত হন। ওসি প্রমিতের মাথায় আঘাত লাগে।

রোববার রাতে কাঁকিনাড়ায় রামনবমীর মিছিলে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত এক ব্যক্তি পরে হাসপাতালে মারা যান।

রোববার পুরুলিয়া জেলায়ও এই মিছিলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এখানেও একজন নিহত হয়েছেন।

রাজ্য বিজেপি ঘোষণা দিলেও আগে থেকে অস্ত্র নিয়ে মিছিল করে আসছে এমন সংগঠন ছাড়া নতুনদের অস্ত্র নিয়ে মিছিল করার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল রাজ্য কর্তৃপক্ষ।

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মুর্শিদাবাদের কান্দিতে অস্ত্র নিয়ে মিছিল বের করা হলে পুলিশ বাঁধা দেয়। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তির পর বিপুল সংখ্যক মিছিলকারী পুলিশের বাঁধা অগ্রাহ্য করে স্থানীয় থানা কম্পাউন্ডে প্রবেশ করে অস্ত্র হাতে নাচানাচি করে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ লাঠি চার্জ করতে বাধ্য হয় বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এসব সংঘর্ষে আরো বহু মানুষ আহত হয়েছেন বলে ভাষ্য পুলিশের।

অস্ত্র নিয়ে মিছিল করায় রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ, নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য