পাকিস্তানের একটি টেলিভিশন চ্যানেল দেশটিতে প্রথমবারের মতো একজন রূপান্তরকামীকে উপস্থাপক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। সাংবাদিকতায় স্নাতক পাস করা মারভিয়া মালিক নামের এই রূপান্তরকারী মডেল হিসেবেও কাজ করেন। তিনি জানিয়েছেন, নিয়োগ নিশ্চিত হওয়ার খবরে তিনি কেঁদেছিলেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি’র খবরে বলা হয়েছে, শুক্রবার মারভিয়ার প্রথম অনুষ্ঠান বেসরকারি টেলিভিশন কোহিনুর-এ প্রচারিত হয়। তিন মাসের প্রশিক্ষণ শেষে ওইদিন তিনি উপস্থাপনা করেন।

পাকিস্তানে রূপান্তরকামীদের বড় ধরনের বৈষম্যের মুখোমুখি হতে হয় এবং চাকরি পাওয়া তাদের জন্য দুষ্কর। অনেকেই ভিক্ষা, নাচ বা বেশ্যাবৃত্তির মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করেন।

বিবিসিকে মারভিয়া জানান, চাকরি পাওয়ার খবরে তিনি আনন্দে চিৎকার করতে চেয়েছিলেন। বলেন, আমি নিজের জন্য এই স্বপ্ন দেখেছিলাম। তা অর্জনের জন্য প্রথম সিঁড়ি পার হলাম আমি।

মারভিয়া জানান, তার চাকরি পাওয়া দেশটির রূপান্তরকামীদের কর্মসংস্থানে সহযোগিতা করবে।

টেলিভিশন চ্যানেলটির মালিক জুনায়েদ আনসারি জানান, মারভিয়াকে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এখানে লিঙ্গ বিবেচনায় নেওয়া হয়নি।

মার্চ মাসের শুরুতে পাকিস্তানের সিনেট রূপান্তরকামী মানুষের অধিকার রক্ষায় প্রস্তাবিত একটি বিলে সম্মতি দেয়। এতে তাদের লিঙ্গ পরিচয় দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এর আগে ২০১৬ সালের জুন মাসে ২৩ বছরের এক রূপান্তরকামী আন্দোলনকর্মী আলিশার মৃত্যু হয়েছিল দেরিতে চিকিৎসা সেবা পাওয়ার কারণে। কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিতে পারছিল না তাকে নারী না পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তি করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য