কুড়িগ্রামঃ কুড়িগ্রামে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাতি উদযাপন করছে ৪৭তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস।

এ উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন জেলা প্রশাসক মোছা: সুলতানা পারভীন, পুলিশ সুপার মো: মেহেদুল করিম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আ.লীগ সাধারন সম্পাদক সাবেক এমপি মো: জাফর আলী, প্রমুখ। কুড়িগ্রাম স্বাধীনতার বিজয় স্তম্ভে শ্রদ্ধা জানায় সর্বস্তরের মানুষ।

এ বছর আমাদের মহান স্বাধীনতার ৪৭ বছর পদার্পণের শুভমুহূর্তে বাংলাদেশের স্বল্পোন্নত দেশের গ্রুপ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের যোগ্যতা অর্জন বিশেষ মাত্রা যোগ হয়েছে। একই সঙ্গে গত বছরের অক্টোবরে একাত্তরের ৭ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেয়া সেই কালজয়ী ভাষণও ইউনেস্কোর ইন্টারন্যাশনাল মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড রেজিস্টারে অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্যর স্বীকৃতি লাভ করে।

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন উপলক্ষে এবার জাতীয় পর্যায়ে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। সোমবার ভোরে বিজয় স্তম্ভে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির সূচনা হয়।

সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে জেলা প্রশাসক মোছা: সুলতানা পারভীন, পুলিশ সুপার মো: মেহেদুল করিম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: জাফর আলী, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, প্রেসক্লাব, সরকারী, বে-সরকারী, সাংস্কৃতিক সংগঠন সহ অন্যান্য সংগঠন, সাধারন মানুষ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। পরে কুড়িগ্রাম স্টেডিয়াম মাঠে কতোপ অবমুক্ত, সারাদেশের সাথে একযোগে জাতীয় সংগীত পরিবেশন ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং কুচকাওয়াজ, শারিরীক কসরোত প্রদর্শন, পুরস্কার বিতরনের মধ্যে প্রথম অর্ধের আয়োজন পালন করা হয়। এছাড়াও দিনব্যাপী বিভিন্ন মসজিদ, মন্দির ও উপনাসলয়ে দোয়া মাহফিল সহ অন্যান্য কার্যক্রম সফলভাবে পালিত হয়।

উলিপুরঃ কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলা প্রশাসন “মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস” বিভিন্ন কর্মসূচি মধ্যদিয়ে পালন করা হয়েছে।

আজ সোমবার কর্মসূচির মধ্যে ভোর ৬টা ১৫ মিনিটে ৩১ বার তোপধ্বনী এবং কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, একাত্তরের গণকবর ও স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পন, সূর্যদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারী, আধা সরকারী, স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, ষ্টেডিয়াম মাঠে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বীর মুক্তিযোদ্ধা, পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি, কাব, স্কাউটস, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংগঠনসমুহের সমাবেশ।

আরো ছিল আনুষ্ঠানিক কুচকাওয়াজ, ডিসপ্লে ও পুরস্কার বিতরণ, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্বর্ধনা, বাদ যোহর জাতির শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কামনা করে মসজিদ, মন্দির ও অন্যান্য উপাসনালয়ে মোনাজাত এবং প্রার্থনা, হাসপাতাল, এতিমখানায় উন্নতমানের খাবার পরিবেশন, মিলাদ মাহফিল, উলিপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহিলাদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, শহীদ মিনার চত্বরে রচনা, কবিতা আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা।

বিকেলে ষ্টেডিয়াম মাঠে প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতা ও সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় “জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের তাৎপর্য এবং উন্নয়ন অগ্রগতি” বিষয়ে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রৌমারীঃ সোমবার ২৬ মার্চ পালন উপলক্ষে সূর্যদয়ের সাথে সাথে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের শুভ সূচনা উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পূস্পস্তবক অর্পন। জাতীয় পতাকা উত্তোলন, শান্তির প্রতীক পায়রা অবমুক্ত, কচুকাওয়াজ পরিদর্শন ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংর্বধনা দেওয়া হয়।

পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপঙ্কর রায় এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, ২৮,কুড়িগ্রাম-৪ আসনের সংসদ সদস্য মো. রুহুল আমিন, রৌমারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান বঙ্গবাসী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক এমপি মো. জাকির হোসেন, রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ ।

রাজিবপুরঃ রাজিবপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন রাজিবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শফিউল আলম,বীর মুিক্তযোদ্ধা কমান্ডার ও রাজিবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল হাই সরকার,বীর প্রতিক তারামন বিবি,সাবেক উজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আকবর হোসেন হিরো,ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য ও আওয়ামীলীগ নেতা আলহাজ্ব আজিম উদ্দিন,রাজিবপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল আলম বাদল,বিএনপির সাধারন সম্পাদক আব্দুল হাই সরকার,উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মাষ্টার আজিবর রহমান,সাধারন সম্পাদক আতিয়ার রহমান সোহাগ,উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাইদুর রহমান প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য