দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে স্বাস্থ্য সপ্তাহ উপলক্ষে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আয়োজনে ওর্য়াল্ড ভিশন বাংলাদেশ বীরগঞ্জ এডিপি এবং ব্রাক এর সহযোগিতায় সাইকেল র‌্যালী এবং পুষ্টি মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্বাস্থ্য সচেতনতার লক্ষ্যে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মওলা বকস্ চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. মোঃ জাহাঙ্গীর কবিরের নেতৃত্বে শতাধিক সাইকেল নিয়ে ৮কিলোমিটার পথ পাড়ি দেয় র‌্যালীটি।

শনিবার সকাল ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উক্ত সাইকেল র‌্যালীর আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মওলা বকস্ চৌধুরী।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন, বীরগঞ্জ থানার এসআই মোঃ দুলাল হোসেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মাহামুদুল হাসান পলাশ, ডা. আফরোজ সুলতানা, ডা. মাধবী দাশসহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সাইকেল র‌্যালীটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হতে ৮কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে দুপুর ১২টায় উপজেলার সুজালপুর ইউনিয়নের জগদল উচ্চ বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়। সেখানে জগদল উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মোঃ এমদাদুল হকের নেতৃত্বে শিক্ষার্থীরা র‌্যালিটিকে স্বাগত জানিয়ে বরণ করে নেন। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. মোঃ জাহাঙ্গীর কবিরের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মওলা বকস্ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মাহামুদুল হাসান পলাশ, সুজালপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মহেশ চন্দ্র রায়, জগদল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ এমদাদুল হক প্রমুখ। পরে অতিথিবৃন্দ ওয়ার্ল্ড ভিশন আয়োজিত পুষ্টি মেলা পরিদর্শন এবং জগদল কমিউনিটি ক্লিনিক পরিদর্শন করেন। মেলায় ৮টি ষ্টল অংশগ্রহণ করে।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্য বলেন, জনগণের মাঝে সচেতনতা তৈরীর লক্ষ্যে আজকের সাইকেল র‌্যালী। উদ্যেশ্যে হলো আমাদেরকে সুস্থ্য থাকতে হলে ব্যায়ামের প্রয়োজন। এ কারণে সুস্থ্য থাকার জন্য সকলকে ব্যায়াম করতে হবে। উপস্থিত মায়েদের উদ্যেশে তিনি বলেন, গর্ভবতী মেয়েদের অব্যশই হাসপাতালে গিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা অতিব জরুরী। সুস্থ্য সন্তান প্রসবের জন্য নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা এবং সন্তান প্রসবে অবশ্যই হাসপাতালে সেবা নেওয়া প্রয়োজন। কারণ সন্তান প্রসবেন ১ মিনিটের মধ্যে সন্তানকে কাঁদাতে হবে। তা না হলে সন্তান প্রতিবন্ধি হওয়ার আশংকা থাকে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য